লড়ছি জিতবোই : রাণা চ্যাটার্জী।

0
810

এক ধাক্কায় হাজার হাজার গাড়ি, মানুষ
পথে নামা থেকে বিরত…
কারখানা ,প্রতিষ্ঠান অফিস বন্ধ হয়ে দেশের
গতিশীলতা স্তব্ধ হবার মুখে…!
বাজার খুলতেই শেয়ারবাজারে বড়ো সড়ো পতন!আক্রান্ত পরিবহনের মেরুদন্ড,নিঃশ্বাস নিতে ধুঁকছে বিমান-রেল -বাস আড্ডা ট্যাক্সি পরিষেবা।

বাড়িতে বসে আশঙ্কার সংখ্যাতত্ত্ব আউড়ে
মানিক রতনের টিভির পর্দায় চোখ নচেৎ
হাই তুলে জ্ঞানগর্ব বক্তৃতার মাঝে ভোঁস ভোঁস ঘুম।

এটা করো নি,ওটা করতে পারতে তো-পুরুষতন্ত্রের
ফাঁকা প্রতিধ্বনি,হম্বিতম্বির মাঝে করোনার
করাল গ্রাসে মৃত্যু মিছিলে আঁতকে ওঠা!
প্রকৃতির কান্না হয়ে আসা কাল এক পশলা বৃষ্টিতে
গাছের পাতার ধূলো মুক্তির সবুজ হিন্দোল।

পরিবারের সঙ্গ দিয়ে কমছে খানিক মনের টক্সিন।
ধূলো ধোঁয়া মুক্তিতে এক ধাক্কায় নিম্নাভিমুখী
মহানগর মফস্বলের পলিউশন ক্রমাঙ্ক।

যতো না শহরের স্থায়ী বাসিন্দাদের পরিষেবা দিতে
লাগে জল,আলো,বিদ্যুৎ তার কয়েকগুণ বেশি
খরচ করে বাইরে থেকে ভিড় করে আসা
কর্মসূত্রে জড়ো হওয়া ফ্লোটিং পপুলেশন।
তাদের সৃষ্ট আবর্জনার পাহাড় না জমে শহর ভদ্রস্থ
অভিমুখে তবু কুর্নিশ জানাই জরুরি পরিষেবায়
যুক্ত করোনা প্রতিরোধে নিরলস কাজ চালিয়ে আপোষহীন লড়াইয়ে মুখর স্বাস্থ্যকর্মী,চিকিৎসক।

এ লড়াইয়ে জিতবই বলেও আতঙ্কের রুদ্ধশ্বাস
দিন গুজরান কি হয় কি হয় এই বুঝি ক্ষয়!
করোনার ছোবলে দিশেহারা আট থেকে আশি।
এখনো তবু ঘুম ভাঙেনি কিছু কুম্ভকর্ণের!

সরকারী নিয়মনীতিকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে
দাপিয়ে বেড়ানো বাইক বাহিনী মদ চায়ের ঠেকে!
কালো বাজারীতে অভ্যস্ত মন উসখুস লোভে
উত্তপ্ত আগ্নেয়গিরি করোনার সাথে সহবাসে
উচ্চিংড়ে হয়ে ভ্রূক্ষেপহীন নেচেই চলেছে!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here