শুভেন্দুর হাত ধরে খড়গপুর শহরে যারাই গিয়েছিল বিজেপি দলে প্রদীপ সরকার এর হাত ধরে তারাই ফিরে এলো তৃণমূল কংগ্রেস।

0
360

নিজস্ব সংবাদদাতা, পশ্চিম মেদিনীপুরঃ-২২ শে জানুয়ারি পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর পৌরসভার ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের নিউ সেটেলমেন্ট এলাকায় বিজেপির কর্মী বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সাংসদ দিলীপ ঘোষ ও বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। ওই বৈঠকে শুভেন্দু অধিকারী বলেছিলেন আমি জিতেছিলাম খড়গপুর, ২০২১ সালে আমি তৃণমূল কে হারাব খড়গপুরে । তাই ঐদিন তৃণমূল কংগ্রেসের বেশ কিছু কর্মী শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে বিজেপি দলে যোগদান করেন। তবে তাদের যোগদান বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। ২৭ শে জানুয়ারি সন্ধ্যায় খড়্গপুরের বিধায়ক তথা খড়গপুর পৌরসভার প্রশাসক প্রদীপ সরকার এর হাত ধরে তারা তৃণমূলে যোগদান করেন।শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে যারা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করেছিল তারা ফের বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করায় খড়গপুর শহরে বিজেপি কে ধাক্কা দেয় তৃণমূল। বিধায়ক প্রদীপ সরকার তাদের হাতে তৃণমূল কংগ্রেসের পতাকা তুলে দিয়ে বলেন ২০১৯ সালের উপনির্বাচনে বিধায়ক হিসেবে নির্বাচিত হওয়ার পর খড়গপুর শহরের উন্নয়নে তিনি যথাসাধ্য চেষ্টা করেছেন। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নির্দেশমতো খড়্গপুরের উন্নয়নে কাজ করেছেন । তিনি বলেন হয়তো সবাইকে তিনি খুশি করতে পারেননি। কিন্তু সার্বিক দিক দিয়ে তিনি উন্নয়নের চেষ্টা করেছেন এবং কাজও করেছেন। তাই কিছু মানুষকে ভুল বুঝিয়ে শুভেন্দু অধিকারী তাদের হাতে বিজেপির ঝান্ডা ধরিয়ে দিয়েছিলেন। কিন্তু তারা যে ভুল করে বিজেপিতে যোগদান করেছিল তা তারা স্বীকার করেছেন ।তাই তারা তাদের নিজেদের ভুল বুঝতে পেরে ফের তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করার জন্য আমাকে জানায়। তাই তাদের হাতে বুধবার সন্ধ্যায় এক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে দলের পতাকা তুলে দেওয়া হয়। তিনি বলেন হিম্মত থাকলে শুভেন্দু অধিকারী খড়গপুর এ বিজেপি প্রার্থী কে ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনে জয়লাভ কার্যে দেখাও। খড়্গপুরের মানুষ সচেতন মানুষ এবং তারা জানে কে কাজের মানুষ ।তাই খড়্গপুরের মানুষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের হাতকে আরও শক্তিশালী করে তোলার জন্য তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী কে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করবেন। তাই বিজেপিতে যোগ দেওয়া তৃণমূলের কর্মীরা ঘরে ফিরে এসেছে এবং আগামী দিনে বিজেপি দল থেকে আরও বহু মানুষ তৃণমূলে যোগদান করবেন বলে তিনি জানান। ওই ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাজনৈতিক মহলে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here