পঞ্চায়েতে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ,আগে রাস্তা পরে ভোট, হুঁশিয়ারি তালদির গ্রামের মানুষজনের।

Spread the love

ক্যানিং-দঃ ২৪পরগনা, নিজস্ব সংবাদদাতাঃ- বিগত তিরিশ বছর ধরেই এলাকার একমাত্র চলাচলের রাস্তার বেহাল দশা। বারে বারে রাজনৈতিক নেতারা প্রতিশ্রুতি দিলেও এখনও পর্যন্ত হাল ফেরেনি এলাকার এই রাস্তার। রাস্তার পাশাপাশি বেহাল দশা এলাকার জল নিকাশি ব্যবস্থার। সেই কারণেই এবারে লোকসভা নির্বাচনের আগে ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছেন এলাকার সাধারণ মানুষ। তাদের দাবী আগে রাস্তা পরে ভোট, তারা সকলে একজোট। তাই দক্ষিণ ২৪ পরগণার ক্যানিং থানার অন্তর্গত তালদি গ্রাম পঞ্চায়েতের গাজীপাড়া, উত্তর পাড়ার মানুষজন ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছেন।

দীর্ঘদিন বামফ্রন্ট এলাকায় পঞ্চায়েত থেকে লোকসভা সব জায়গাতেই ক্ষমতায় ছিল। সেই সময় সেভাবে কোন কাজ হয়নি। গত পনেরো বছর ধরে এই এলাকায় কোন কাজ হয়নি বলে অভিযোগ তুলেছেন এলাকার মানুষজন। বামেদের হাত থেকে তালদি গ্রাম পঞ্চায়েত তৃণমূল ছিনিয়ে নেওয়ার পর এই এলাকায় মাটির রাস্তার উপর ইট বিছিয়ে দেওয়া হয়েছিল প্রায় বছর পনেরো আগে। কিন্তু দু এক বছরের মধ্যেই সে রাস্তা অনেক জায়গায় ভেঙে যায়। ফলে গত কয়েকবছরে আরও খারাপ অবস্থা হয়েছে ঐ রাস্তার। বর্ষার সময় মানুষ এই রাস্তা থেকে একেবারেই চলাচল করতে পারেন না। ছোট ছোট ছেলে মেয়েরা স্কুলে যাওয়া আসার পথে পড়ে গিয়ে আহত হয় বলে অভিযোগ। এলাকার প্রায় হাজার খানেকের বেশী মানুষজন এই রাস্তা ও জল নিকাশির জন্য সমস্যায় ভুগছেন। খারাপ রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে গিয়ে হাত, পা ভাঙছে এলাকার বাসিন্দাদের। বারে বারে এ বিষয়ে স্থানীয় পঞ্চায়েতকে বলে ও কোন লাভ হয়নি। আর সেই কারণেই এবারের লোকসভা ভোট বয়কটের ডাক দিয়েছেন তারা। গ্রামবাসীদের এই সমস্যার কথা স্বীকার করে নিয়েছেন তালদি গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান কালিচরণ মাল।
বৃহষ্পতিবার উপপ্রধান কালিচরণ মাল ও তাঁর লোকজন সাথে করে নিয়ে গ্রামের বেহাল রাস্তা পরিদর্শনে যান এবং সমস্যা সমাধানের জন্য গ্রামবাসীদের সাথে মিটিং আলোচনা করেন। অভিযোগ আলোচনা চলাকালীন গ্রামবাসী উপপ্রধান কালীচরণ মালকে হেনস্থা করলে তিনি সেখান থেকে চলে যান। গ্রামবাসীদের পাল্টা অভিযোগ উপপ্রধান লোকজন নিয়ে এসে পাড়ার লোকজনদের হুমকী দিয়েছে পাশাপাশি গ্রামের মহিলাদের অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে হেনস্থা করেন। এরই প্রতিবাদ জানিয়ে গ্রামবাসীরা এদিন সকালে তালদি গ্রাম পঞ্চায়েত দফতরে তালা লাগিয়ে বিক্ষো দেখান। গ্রামবাসীদের দাবী মেয়েদেরকে গালিগালাজ এবং হেনস্থা করার জন্য উপপ্রধান কালিচরণ মাল কে অবিলম্বে ক্ষমা চাইতে হবে এবং রাস্তার কাজ শুরু করতে হবে । আর তা না হলে আমরা আদালতের দ্বারস্থ হতে বাধ্য হবো।
উপপ্রধান কালী চরণ মাল ঘটনার কথা অস্বীকার করে বলেন ”গ্রামবাসীদের দাবী মেনে নতুন ইটের রাস্তার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। কিন্তু গ্রামের লোকেরা ইটের নয় কংক্রিটের রাস্তার দাবী করছেন। সেই কারণেই এই রাস্তার কাজ বন্ধ রয়েছে।মহিলাদের হেনস্থা এবং গালিগালাজ এর ব্যাপার সম্পূর্ণ মিথ্যা। ”


Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *