১৩ দফা দাবিতে দিনহাটা কলেজের অধ্যক্ষকে ডেপুটেশন দিল এসএফআই।

Spread the love

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনে উত্তরবঙ্গে মহাবিপর্যয় ঘটে রাজ্যের শাসকদল তৃনমুল কংগ্রেসের। আর এর পরেই নিজেদের আস্তিত্ব জানান দিতে কোচবিহার জেলার বিভিন্ন কলেজ গুলিতে তৃনমুল ছাত্র পরিষদ বিরোধী সংগঠন গুলি সক্রিয় ভুমিকা নিতে শুরু করে। সিপিএম নিয়ন্ত্রিত ছাত্র সংগঠন এস এফ আই গত ২৪ থেকে ২৭ মে পর্যন্ত দিনহাটা কলেজে ধারাবাহিক ভাবে সংগঠনের পতাকা লাগাবার কর্মসুচী রুপায়ন করে। এর পর বুধবার দিনহাটা কলেজ চত্বরে মিছিল সংগঠিত করে এই ছাত্র সংগঠন। একই সাথে ১৩ দফা দাবির ভিত্তিতে অধ্যক্ষের কাছে স্বারক লিপি দেয় তারা। সংগঠনের পক্ষ থেকে বলা হয় দিনহাটা কলেজ দখলের রাজনীতি বন্ধ করে বহুদলীয় গনতান্ত্রিক ব্যবস্থা পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে। মেধের ভিত্তিতে ভর্তি পক্রিয়া চালু ও তোলাবাজি বন্ধের দাবি জানাবার পাশাপাশি কলেজ ক্যাম্পাসে ছাত্র ছাত্রীদের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার দাবি জানানো হয়।
এদিনের এই ডেপুটেশন দেওয়ার সময় সংগঠনের নেতা শুভ্র লোক দাস বলেন, দিনহাটা সহ রাজ্যের বিভিন্ন কলেজে বাম আমলে যে গণতান্ত্রিক পরিবেশ ছিল আজ সেই পরিবেশ বিনষ্ট হয়ে গিয়েছে। তৃণমূল ছাত্র পরিষদ কলেজ গুলিকে নৈরাজ্যে পরিণত করেছে। ছাত্র ভর্তির নামে ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে আদায় করেছে। এভাবে চলতে পারে না। আমরা চাই গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে ছাত্র সংসদ গঠন হোক। মেধার ভিত্তিতে স্বচ্ছভাবে ভর্তি প্রক্রিয়া চলুক। তিনি বলেন, বর্তমান সময়ে ছাত্র-ছাত্রীদের অভিবাবকরা তাদের ছেলেমেয়েদের কলেজে পাঠাতে ভরসা পান না। কারণ কলেজগুলিতে এক বিশৃংখল পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছে।
দিনহাটা কলেজের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, এখানে একটি নতুন কলেজ খোলা জরুরী। কলেজের দাবিতে এসএফআই দীর্ঘদিন ধরে আন্দোলন চালিয়ে আসছে। এদিন এই ডেপুটেশন দেওয়ার সময় কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের সঙ্গে এসএফআই নেতা কর্মীদের সমস্যা গুলি নিয়ে আলোচনা হয়। ডেপুটেশনের আগে ছাত্র-ছাত্রীদের একটি মিছিল শহর পরিক্রমা করে।


Spread the love

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *