বিশ্ব মানবাধিকার দিবসে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকার গ্রামে গ্রামে মানবাধিকার নিয়ে প্রচার মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের।

0
611

বালুরঘাট, নিজস্ব সংবাদদাতাঃ- বিশ্ব মানবাধিকার দিবসে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকার গ্রামে গ্রামে মানবাধিকার নিয়ে প্রচার মহিলা তৃণমূল কংগ্রেসের। শুক্রবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার হিলি ব্লকের জামালপুরের ভারত বাংলাদেশ কাটাতার সংলগ্ন গ্রামগুলিতে এবং কুশমন্ডি ব্লকের উদয়পুর গ্রাম পঞ্চায়েতের চন্ডীপুরের ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তের কাটাতার সংলগ্ন গ্রাম সাটিমারিতে বিশ্ব মানবাধিকার দিবস উপলক্ষ্যে গ্রামবাসীদের মধ্যে মানবাধিকার নিয়ে প্রচার চালায় মহিলা তৃণমূল কর্মীরা। এদিন এই প্রচার চলাকালীন উপস্থিত ছিলেন দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তৃণমূল মহিলা কংগ্রেসের জেলা সভাপতি প্রদীপ্তা চক্রবর্তী। প্রসঙ্গত উল্লেখ যে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার প্রায় ২৫২ কিলোমিটার এলাকায় রয়েছে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত। যার মধ্যে অধিকাংশ সীমান্ত এলাকা কাটাতারে ঘেরা থাকলেও এখনও প্রায় ৩৫ কিলোমিটার এলাকা কাটাতারহীন। শুধু তাই নয় ভারত-বাংলাদেশ কাটাতারের ওপারেও ভারতীয় ভূখন্ডে রয়েছে উচা গোবিন্দপুর, উজাল, হাড়িপুকুর-এর মত একাধিক গ্রাম। সীমান্ত লাগোয়া গ্রাম হওয়ায় বি.এস.এফ-এর নানাবিধ বিধি নিষেধের কারনে অতীতে অনেকক্ষেত্রেই বি.এস.এফ-এর বিরুদ্ধে হেনস্থার অভিযোগ তুলে সরব হতে দেখা গিয়েছে একাধিক গ্রামের গ্রামবাসীদের। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের আইনি পার্শ্বসেবক সুরজ দাশ জানিয়েছেন সীমান্ত এলাকায় সমস্যা চলছিল, গ্রামবাসীদের উপর অত্যাচার চালানোর অভিযোগ ছিল বি.এস.এফ-এর বিরুদ্ধে। যে কারনে আইনি পরিষেবা কর্তৃপক্ষের উদ্যোগে ডুমরন এলাকায় গ্রামবাসীদের এবং বি.এস.এফ আধিকারিকদের নিয়ে শিবিরও অনুষ্ঠিত হয় প্রায় বছর খানেক পূর্বে। যদিও পরবর্তী সময়েও সীমান্ত লাগোয়া একাধিক গ্রামের বাসিন্দাদের বি.এস.এফ-এর বিরুদ্ধে হয়রানির অভিযোগ তুলে সরব হতে দেখা গেছে। যার পরে এদিন তৃণমূলের মহিলা সংগঠনের কর্মীদের সীমান্ত লাগোয়া গ্রামগুলিতে হ্যান্ডবিল বিলির মাধ্যমে মানবাধিকার বিষয়ে প্রচার চালানোর বিষয়কে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। জানা গেছে এদিন তৃণমূলের মহিলা কর্মীরা হ্যান্ডবিল বিলির মাধ্যমে ও পাড়া বৈঠকের মাধ্যমে সাধারণ নাগরিকদের সাংবিধানিক অধিকার বিষয়ে এমনকি বি.এস.এফ-এর এক্তিয়ার বিষয়েও সচেতন করে গ্রামবাসীদের। দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূল মহিলা কংগ্রেসের জেলা সভাপতি প্রদীপ্তা চক্রবর্তী বলেন আমাদের জেলা সীমান্তবর্তী জেলা, মাঝেমধ্যেই দেখা যায় সীমান্ত এলাকার মহিলাদের মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে, যে কারনে মহিলাদের সচেতন করতেই আমাদের কর্মসূচি। তিনি বলেন আমাদের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং আমাদের সংগঠনের নেত্রী কাকলি ঘোষ দোস্তিদার সবসময় নারীদের সম্মান -অধিকার-স্বার্থ বিষয়ে মহিলাদের সচেতন করার কথা বলে চলেছেন, যে কারনে আমরাদের এই কর্মসূচী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here