এ আই ডি এস ও ছাত্র সংগঠনের দশম ছাত্র সম্মেলন।

0
331

নিজস্ব সংবাদদাতা, পশ্চিম মেদিনীপুর:- ২৮ শে জানুয়ারি ছাত্র সংগঠন এআইডিএসও’র পশ্চিম মেদিনীপুর (উত্তর) সাংগঠনিক জেলার দশম ছাত্র সম্মেলন অনুষ্ঠিত হলো মেদিনীপুর বিদ্যাসাগর হলে। শুক্রবার সকাল দশটায় মেদিনীপুর স্টেশন থেকে ছাত্র-ছাত্রীদের একটি সুসজ্জিত মিছিল মেদিনীপুর শহর পরিক্রমা করে মেদিনীপুর বিদ্যাসাগর হলে উপস্থিত হয়। বিদ্যাসাগর হলে সংগঠনের রক্ত পতাকা উত্তোলন এবং নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পার্ঘ্য অর্পণের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের কাজ শুরু হয়। সম্মেলনের প্রথমে স্বাগত ভাষণ দেন এদেশের বিপ্লবী সাম্যবাদী দল এসইউসিআই (কমিউনিস্ট)-এর জেলা সম্পাদক নারায়ণ অধিকারী। মূল খসড়ায় কেন্দ্রীয় সরকারের জাতীয় শিক্ষানীতি ২০২০ বাতিল এবং রাজ্যের স্কুল কলেজ খোলাসহ বাসে ছাত্র-ছাত্রীদের এক তৃতীয়াংশ ভাড়ায় যাতায়াত, মোবাইল ডাটা প্যাকেজ রিচার্জ এর দাম কমানোর দাবিতে আগামী দিনে আন্দোলন গড়ে তোলার শপথ নেওয়া হয়। তারপর সম্মেলনে মূল বক্তা সংগঠনের রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য বিশ্বজিৎ রায় বক্তব্য রাখেন। বিশ্বজিৎ রায় বলেন, শিক্ষার বেসরকারিকরণ, বাণিজ্যিকীকরণ, সাম্প্রদায়িকীকরনের নীলনকশা জাতীয় শিক্ষানীতি ২০২০ বাতিলের জন্য লড়াই আগামী দিনের। মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন সংগঠনের রাজ্য সভাপতি শামসুল আলম, রাজ্য সম্পাদকমণ্ডলীর সদস্য সুরজিৎ সামন্ত, বিদায়ী কমিটির সম্পাদক ব্রতীন দাস এবং সভাপতি বিশ্বরঞ্জন গিরি। সম্মেলন থেকে সিদ্ধার্থ শংকর ঘাঁটা কে সভাপতি এবং তনুশ্রী বেজকে সম্পাদিকা ঘোষণা করে বারো জনের সম্পাদকমন্ডলী, ২২ জনের জেলা কমিটির সদস্য এবং ৪৭ জনের জেলা কাউন্সিল ঘোষণা করে মোট ৮১ জনের পশ্চিম মেদিনীপুর (উত্তর) সাংগঠনিক জেলা বডি গঠিত হয়। এই সম্মেলনে রাজ্য সভাপতি শামসুল আলম নতুন জেলা কমিটির উদ্দেশ্যে স্বাগত ভাষনে- আগামী দিনে জেলাব্যাপী শিক্ষা সংস্কৃতি মনুষত্ব রক্ষার আন্দোলনকে শক্তিশালী করা এবং সরকারের শিক্ষাবিরোধী, ছাত্র বিরোধী যেকোনো পদক্ষেপের বিরুদ্ধে লড়াই আন্দোলনের আহ্বান জানান। এরপর সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে সম্মেলনের কাজ শেষ হয়।