মাথাভাঙ্গা হিন্দুস্তান মোড়ে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে আহত ৪, উত্তপ্ত পাড়াডুবি এলাকা।

0
268

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ ফের রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল মাথাভাঙার পাড়াডুবি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা। গতকাল রাতে মাথাভাঙা দুই নং ব্লকের পাড়াডুবি গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার হিন্দুস্তান মোড়ে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ উভয় পক্ষের মোট চারজন আহত হয়েছেন বলে সূত্রের খবর।
তৃণমূল কংগ্রেসের মাথাভাঙা দুই নং ব্লকের সহ-সভাপতি অধ্যাপক সাবলু বর্মন করে বলেন, সোমবার হিন্দুস্তান মোড় এলাকায় একটি যোগদান কর্মসূচি ছিল। বেশকিছু বিজেপি সহ অন্যান্য দল থেকে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করে। তারপর রাতের বেলায় তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী শক্তি রঞ্জন, মন্ডল গঙ্গা বর্মন সহ ৩ জন কর্মীকে বেধড়ক লাঠিপেটা লোহার রড আগ্নেয়াস্ত্র দিয়ে মারধোর করে। তাদের মধ্যে শক্তি রঞ্জন মন্ডল এবং গঙ্গা বর্মন এর পরিস্থিতি গুরুতর হওয়ায় মাথাভাঙ্গা হাসপাতালে চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসা করার জন্য কোচবিহার মেডিকেল কলেজে স্থানান্তরিত করে।
এই খবর পেয়ে মাথাভাঙ্গা হাসপাতালে ছুটে যান তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা সাবলু বর্মন, মাথাভাঙ্গা ১ নং ব্লকের সংখ্যালঘু সেল এর সভাপতি রাজিবুল হাসান(সাগর), সঞ্জয় বর্মন (উত্তর), বানেশ্বর মন্ডল, সুন্দর বর্মন, বাপি রায় সহ অন্যান্য তৃণমূল কংগ্রেসের একাধিক নেতা কর্মীরা।
তৃণমূল কংগ্রেস নেতা সাবলু বর্মন আরো অভিযোগ করে বলেন, রাতের বেলায় বৈদ্যুতিক ট্রান্সফর্মার ডাউন করে আলো নিভিয়ে বিজেপির আশ্রিত গুন্ডারা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা কর্মীদের যেভাবে মারধর করেছে সেটা আমরা কোন মতেই মেনে নেব না। কোচবিহার জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি গিরীন্দ্রনাথ বর্মন এর সঙ্গে আলোচনা করে গণতান্ত্রিক উপায়ে আগামী দিনে এর যোগ্য জবাব দেওয়ার জন্য আমরা প্রস্তুতি নিচ্ছি।
তিনি আরো অভিযোগ করে বলেন, হিন্দুস্তান মোড়ে একটি পুলিশ ক্যাম্প থাকা সত্ত্বেও কি ভাবে ঘটনা ঘটিয়েছে তার সঠিক তদন্ত করে পুলিশ দোষীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করুক না হলে আমরা বৃহত্তর আন্দোলনে শামিল হতে বাধ্য হব।
এই ঘটনার খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে হিন্দুস্তান মোড়ে আসেন ঘোকসাডাঙ্গা থানার পুলিশ পরবর্তীতে মাথাভাঙ্গা হাসপাতালে ছুটে আসেন ঘোকসাডাঙ্গা পুলিশসহ মাথাভাঙার সেকেন্ড অফিসার মোহাম্মদ আলীর নেতৃত্বে বিশাল পুলিশবাহিনী। পরবর্তী সময়ে রাত সাড়ে এগারোটা নাগাদ সাবলু বর্মন এর নেতৃত্বে তৃণমূল এর এক প্রতিনিধি দল মাথাভাঙ্গার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার অমিত ভার্মার সঙ্গে দোষীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে সাক্ষাৎ করেন।
যদিও বিজেপির বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছে বিজেপি নেতৃত্বরা। বিজেপি নেতা প্রতাপ সরকার বলেন, আমাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন। তিনি বলেন বরং তৃণমূল কর্মীরা আমাদের এক কর্মী নিতাই মন্ডলকে বেধড়ক মারধোর করে।
এ প্রসঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা সভাপতি গিরীন্দ্রনাথ বর্মন বলেন, রাতেই আমাদের দলের কর্মীদের আক্রান্ত হওয়ার খবর পেয়েছি। গোটা বিষয়টি দলীয়ভাবে খোঁজখবর নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। বর্তমানে মাথাভাঙা দুই নং ব্লকের পাড়াডুবি সহ হিন্দুস্তান মোড় এলাকা বর্তমানে চাপা উত্তপ্ত অবস্থায় রয়েছে। যদিও ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।
এই ঘটনায় ইতিমধ্যে পুলিশ দুজনকে গ্রেপ্তার করেছে, গ্রেপ্তার হওয়া দুই ব্যক্তির নাম যথাক্রমে স্বপন বর্মন এবং রঞ্জিত বর্মন। তৃণমূল সূত্রের খবর এই ঘটনার প্রতিবাদে আজ বিকেল বেলায় হিন্দুস্তান মোড় এ ধিক্কার মিছিল করার পরিকল্পনা রয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here