ঋণ নিয়ে ভুট্টা চাষ, কীটনাশক দিয়ে একদিকে ভুট্টা গাছ মেরে ফেলল দুষ্কৃতীরা, মাথায় হাত ভাগ চাষির।

0
393

নদীয়া, নিজস্ব সংবাদদাতা:- ঋণ নিয়ে ভুট্টা চাষ করেছিল এক ভাগচাষী, সেই ভুট্টা জমি কীটনাশক দিয়ে নষ্ট করে দেওয়ার অভিযোগ দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে। প্রশাসনের দ্বারস্থ ওই ভাগচাষী। ক্ষতিপূরণ না পেলে আত্মহত্যা করা ছাড়া কোন উপায় নেই বলছেন প্রতিবেশীরা। নদীয়ার শান্তিপুর থানা এলাকার ঘটনা। শান্তিপুর থানার গয়েশপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের এলাকার বাসিন্দা জুবাদ আলী মন্ডল। কোনরকমে অন্যের জমিতে চাষাবাদ করে সারা বছর সংসার চালান তিনি। জানা যায় তিনি এবছর অন্যের এক বিঘা জমিতে ভুট্টা চাষ করেছিলেন। ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে ওই চাষ করেছিলেন তিনি। আজ সকালে জমিতে গিয়ে দেখেন সব ভুট্টা গাছ গুলি মরে যাচ্ছে। এরপরই তিনি জমি গাছগুলিতে ভালো করে লক্ষ্য করে দেখেন কীটনাশক দিয়ে মেরে ফেলা হয়েছে ওই গাছগুলি। এর পরেই শান্তিপুর থানা দ্বারস্থ হয় ওই ভাগচাষী। তিনি বলেন ব্যাংক থেকে ঋণ নিয়ে কোনরকমে ওই চাষ করেছিলেন তিনি। চাষ করে যা লাভ হয় তা দিয়ে সারা বছর সংসার চলে তার। কিন্তু তার জমির ভুট্টা গাছ গুলি কে কীটনাশক দিয়ে নষ্ট করে দেওয়ায় মাথায় হাত তার। কিভাবে সংসার চালাবেন আর কীভাবেই বা ব্যাংকের ঋণ শোধ করবেন তা নিয়ে চিন্তায় ঘুম উড়েছে। প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েও তিনি চাইছেন অবিলম্বে যারা এই ঘটনার সঙ্গে যুক্ত তাদের চিহ্নিত করে কঠোরতম শাস্তি দিক। ওই ভাগচাষী এবং প্রতিবেশিরা চাইছেন অবিলম্বে সরকার এবং প্রশাসন উদ্যোগ নিয়ে থাকে ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করুক। অভিযোগের ভিত্তিতে গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে শান্তিপুর থানার পুলিশ।