রামনগরের দে পাল প্রধানের মানবিক মুখ,অসুস্থ পরিচয়হীন বৃদ্ধাকে চিকিৎসার সুব্যবস্থা।

0
150

পূর্ব মেদিনীপুর, নিজস্ব সংবাদদাতা:-  পূর্ব মেদিনীপুর রামনগর যেখানে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার অনেক বিধায়ক টক টু এমএলএ কর্মসূচি চালু করেছিলেন সেখানে
এক অনন্য ধরনের নজির সৃষ্টি করলেন রামনগর থানার দে পালগ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান অনুপ কুমার মাইতি। গ্রামবাসীদের চোখে তিনি যেন ঘরের ছেলে। আলাদা নজির গড়লেন যেখানে মানুষ সরকারি প্রকল্পে সুযোগ-সুবিধা পেতে পঞ্চায়েতে দোরগোড়া হাজির হতেন সেখানে রাজ্য সরকারের যাবতীয় কর্মসূচি বা প্রকল্পগুলি নিয়ে তিনি বাড়ি বাড়ি পৌঁছে যাচ্ছেন দে পাল গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান। গত কাল কানে আসে এক অসুস্থ বৃদ্ধা রাস্তার পাশে পড়ে কাতরাচ্ছেন নাম-পরিচয় কিছুই বলতে পারছেন না। আর তখনি ছুটে আসেন প্রধান অনুপ মাইতি সঙ্গে সঙ্গে তুলে নিয়ে গিয়ে তাকে তিনি ভর্তি করান স্থানীয় স্বাস্থ্য কেন্দ্রে, কিনে দেন প্রয়োজনীয় পথ্য সামগ্রী পরনে ছিল ছেঁড়া ময়লা শাড়ি তাই সঙ্গে সঙ্গে কিনে দেন বৃদ্ধ মহিলার জন্য এক নতুন শাড়ি। চিকিৎসার কিছুটা সুস্থ হয়ে সাড়া দিলে তিনি তার নাম ঠিকানা বলেন মোহনপুরের বাসিন্দা ওই মহিলা দীর্ঘদিন ধরে তার স্বামী মারা গেছেন তাই মেয়ের বাড়িতে থাকতেন কিছুদিন যাবত মেয়ের সঙ্গে মনোমালিন্য ঘটায় বাড়ি থেকে বেরিয়ে আসেন ,এবং হাঁটতে হাঁটতে তিনি পৌঁছে যান দেপাল গ্রামে রামনগর কলেজ এর কাছে আর তখনই অসুস্থ হয়ে পড়েন সেই খবর যেতেই তড়িঘড়ি তাকে উদ্ধার করে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করেন প্রয়োজনীয় ওষুধপত্র কিনে দিয়ে সঙ্গে কিছু টাকা পয়সা দিয়ে তাকে বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করেন । এলাকার মানুষের কথায় যেখানে সরকার তার কর্মসূচির জন্য সহায়তা কেন্দ্র খুলেছে আর তার ই সরকারের আমলে শাসক দলের প্রধান বাড়ি বাড়ি গিয়ে মানুষদের কাছেপৌঁছে দিচ্ছেন তার সহকারী প্রকল্প গুলির কথা। তাই গ্রামবাসীদের কথায় এক অনন্য প্রধান যেখানে বিভিন্ন জায়গায় বিধায়করা এম এল এর কর্মসূচি ঘোষণা করে সাধারণ মানুষের কথা শোনেন কিন্তু দেপাল গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান মানুষের কথা শোনার জন্য এলাকার মানুষের বাড়িতে পৌঁছে যাচ্ছেন তা দেখে কার্যত খুশি এলাকার বাসিন্দারা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here