শহর বা মহানগর : প্রসেনজীৎ চট্টোপাধ্যায়।।

0
335

কজনই বা দ্যাখে জনসমুদ্রে আছড়ায় কত ঢেউ
কেউ গোবেচারা গাভীর স্বভাবে কেউ সুচতুর ফেউ
কজনই বা বোঝে ব্যস্ত শহরে আছে কত ব্যর্থতা
কজনই বা লেখে মহানগরের মননের মত্ততা ?

কজনই বা দ্যাখে প্রদীপের নীচে আঁধারের বিদ্রূপ
পোড়ে চুপিসারে সুরভি ছড়িয়ে কত সুগন্ধি ধূপ ।
শহরে বা মহানগরে স্বপ্ন দেখতে লাগে না ভয়
সফলতা পেতে হারাতেও পারে পূর্বের পরিচয় ।
দিন শুরু হলে দেখি ধীরে ধীরে পথিকের সমাগম
মুখে নেই কথা বড় ব্যস্ততা, বুকে নেই সম্ভ্রম ।
আট থেকে আশি করে রেষারেষি কম বেশি প্রায়শ
কেউ অভিনয়ে পটু হয়ে ওঠে, কেউ অতি হিংস্র ।

মহানগরের পথে সংসার পাতে গৃহহীন যাযাবর
হয়তো বা তার ছিল পল্লীতে একচালা কুঁড়েঘর ।
অস্থির বেশে দলে দলে আসে কি তাদের পরিচয় ?
বস্তির থেকে উঠে এসে নেয় ফুটপাতে আশ্রয় ।
তারা ভবঘুরে স্বভাবে হাঘরে ভাবে যে নগরপাল
প্রকাশ্যে কিছু কড়িয়াল বলে: “শহরের জঞ্জাল” ।
তারই মাঝে আছে নামী রেস্তোরা, বিকৃত বিনোদন
তকমা লাগানো বাবুর প্রাসাদে বিলাসিতার আয়োজন ।
মহানগরের ঘ্রাণে আছে অভিধানে অগণিত ঝরা পাতা
জনতার ঢলে কোলাহলে আছে নিদারুণ নীরবতা ।

শহরই তো ছোটে বিস্তৃত পথে প্রত্যহ, অবিরাম
মহানগর রাখেনা মনে ও মননে শ্রমজীবীদের নাম ।
আছে যার টাকা দামী চারচাকা, বিস্তর কারবার
তারাই শহুরে মোহের শহরে, কর্তা, কর্ণধার ।
যারা প্রকৃতই জ্ঞানী, নিজ গুণে গুণী অলক্ষ্যে উপহাস
হয়তো বা তারা অন্ধ গলিতে করে চেতনার চাষ ।
যারা নিরুপায় ঝুলে থাকে প্রায় পায় সস্তার যান
বসে পাশাপাশি নিয়ে ফিকে হাসি, ঘর্মতে করে স্নান ।

বহু শ্রমিকের জীবনের মান যেন ব্যবহৃত খাম
ব্যবসায়ী মেধা দেয় না শ্রমের মূল্য, ন্যায্য দাম ।
যার যত আছে তত সে লোলুপ, অতিশয় হীন মন
সে বড় কাঙাল সঞ্চয় যার শুধু পার্থিব ধন ।
হলে তাঁবেদার হবে রোজগার টিকে যাবে সংসার
ঠোঁটকাটা হলে চোট পাবে তুমি, ভর্ৎসনা বারবার ।
যারা সত্যাশ্রয়ী সৎ পথে হেঁটে করে কিঞ্চিৎ আয়
সভ্য সমাজে তারা ঘানি টানে, সংসারে পিষে যায় ।
ডুবে যায় তারই জীবনের তরী হতাশার মোহনায়
দুর্ভিক্ষের দেশে মরে তারা শেষে অভাবের তাড়নায় ।

সন্ধ্যা ঘনালে সাজানো শহরে দেখি কত রোশনাই
বিজ্ঞাপনের রাজকীয় সাজ বিস্ময়ে দেখি ভাই ।
ওঠে মদের ফোয়ারা ব্যস্ত বেয়ারা পাঁচতারা হোটেলে
কত কালো টাকা সাদা হয় ছোট পর্দার আড়ালে ।
দেখি যে নিত্য কত বিচিত্র চিত্র, চরিত্র
মুখোশের আড়ে অভিনয় করে শত্রু বা মিত্র ।
পথ ভুলে যায় পথিক কোথায়? লক্ষ্য যে বহুদূর
সাজানো শহরে আছে চোরাবালি, মেঘে ঢাকা রোদ্দুর ।
আছে বিলাসবহুল সজ্জিত ঘরে লাঞ্ছিত জননী
অট্টালিকার অন্দরে লাখো ধর্ষিতা গৃহিণী ।

কত বুকের লহুতে লেখা আছে মহানগরের ইতিকথা
কত প্রতিবাদী হয়েছে বধির, বক্তা নীরব শ্রোতা ।
চোখে ঠুলি পড়ে বিলাসী শহুরে দ্যাখে শুধু ব্যস্ততা
সাজানো শহরও শ্রমিকের চোখে সাহারার শূন্যতা ।
শহরে বা মহানগরে নিহিত আলোতে অন্ধকার
যার রঙিন স্বপ্ন সফলতা পায় বদলায় রঙ তার ।।

কবি – প্রসেনজীৎ চট্টোপাধ্যায়
শেওড়াফুলি, হুগলী জেলা, পশ্চিমবঙ্গ
21/06/2021
copyright@Prasenjit Chatterjee

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here