অতীতের সড়ক দুর্ঘটনায় অভিজ্ঞতা নিয়ে হেলমেট বিহীন চালকদের বার্তা দিতে সেভ ড্রাইভ সেফ লাইফেএর কর্মসূচিতে হাজির বিশেষভাবে সক্ষমরাও।

0
367

নদীয়া, নিজস্ব সংবাদদাতা:- একসময় সড়ক দুর্ঘটনায় অঙ্গহানি হয়েছে তাঁদের। সাধারণ মানুষ থেকে অন্তর্ভুক্তি ঘটেছে বিশেষভাবে সক্ষম দের তালিকায়। আর তারাই সাধারণ মানুষের উদ্দেশ্যে বার্তা দিতে জ্বলন্ত অভিজ্ঞতা নিয়ে হাজির হয়েছে সেভ ড্রাইভ সেফ লাইফের সচেতনতার রেলিতে ।
রানাঘাট জেলা পুলিশ এবং শান্তিপুর থানার যৌথ উদ্যোগে আয়োজিত সেভ ড্রাইভ সেফ লাইফের সুদীর্ঘ মোটর বাইক রেলিতে এই প্রথম দেখা গেল বিশেষভাবে সক্ষম দের। সকলের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তোলার উদ্দেশ্যেই থানার পক্ষ থেকে শান্তিপুর এর বিভিন্ন সামাজিক সংগঠন কে আহ্বান জানানো হয়েছিলো। প্রশাসনিক সূত্রে জানা যায়, সক্রিয় অংশগ্রহণের মাধ্যমে শুধু বার্তা হিসেবেই নয় বাস্তব ও অনেকটাই কার্যকরী হয়ে উঠবে সকলের সমবেত অংশগ্রহণে। ভারতে প্রতি 1 ঘন্টায় 53 জন সড়ক দুর্ঘটনায় আক্রান্ত হন যার মধ্যে 17 জন মারা যান। প্রতি 4 মিনিটে একটি করে সড়ক দুর্ঘটনার খবর পাওয়া যায়। যার মধ্যে বেশিরভাগই হেলমেট বিহীন অবস্থায় অথবা মোবাইল কানে দিয়ে চলা বাইক আরোহী। সামান্য এই ভুলের জন্য সারা জীবনের উপার্জন নষ্ট হওয়ার সাথে অত্যন্ত প্রিয় মানুষকে হারাতে হয়। এত বিপুল পরিমাণে আরোহীকে শুধুমাত্র পুলিশের চোখ রাঙিয়ে, আইনের বেড়াজালে আবদ্ধ করে সচেতনতা সম্ভব নয় যদি না তারা অন্তর থেকে অনুভব করে। বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের সদস্যরা প্রশাসনকে ধন্যবাদ জানিয়ে দাবি করেন এবারে তাদের উপস্থিতিতে এই অভিনব আয়োজনে তারা খুশি। শুধু একদিনের জন্য নয় নিয়মিত দায়িত্ব পালন করতে প্রস্তুত তারা।
বিশেষভাবে সক্ষম রা জানান, অঙ্গহানির তিক্ত অভিজ্ঞতা তাঁদের থেকে বেশি আর কারো কাছে নেই, তাই সকলের কাছে তাদের কাতর প্রার্থনা মেনে চলুন পথ নিরাপত্তা আইন।