দুবরাজপুরের চা ওয়ালার মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার।

0
280

বীরভূম, সেখ ওলি মহম্মদ:- আমাদের সমাজে অনেকে নতুন বছরে হৈ হুল্লোড় করে পিকনিক করতে যায় এবং নাচে গানে আনন্দে মেতে ওঠেন। কিন্তু আজ বছরের প্রথম দিনেই বীরভূম জেলার দুবরাজপুর রঞ্জনবাজারের এক চা ওয়ালা মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার করল। তিনি হলেন 35 বছর বয়সী বিপুল ওঝা। শুধু তিনিই নন তাঁর এত সুন্দর ভাবনার জন্য 51 বছর বয়সী তাঁর মা কণিকা ওঝাও মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার করলেন। উল্লেখ্য, চায়ে পে চর্চা তো আমরা রাজনীতিতে দেখেছি। কিন্তু এখানে চায়ে পে চর্চা এক প্রকার দুটো অন্ধ মানুষের চোখের আলো ফিরিয়ে দিতে পারে। দুবরাজপুরের রঞ্জনবাজারে রয়েছে বিপুল বাবুর একটি ছোট্ট চায়ের দোকান। তাঁর দোকানে প্রায়ই সব আড্ডা দিতে আসেন এবং চা পান করেন। হঠাৎ একদিন কয়েকজন স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যরা মরণোত্তর চক্ষুদানের বিষয়ে একটি আলোচনা করছিলেন। সেই সময় তিনি তাঁদের কথা শুনে উদ্বুদ্ধ হন। তাই আজ তিনি এবং তাঁর মা মরণোত্তর চক্ষুদানের অঙ্গীকার করলেন। এদিন বীরভূম ভলেন্টারি ব্লাড ডোনার্স এসোসিয়েশনের সহ সভাপতি প্রিয়নীল পাল তাঁদের দুজনের স্বাক্ষর করিয়ে নেন।