সুন্দরবনে আবার বাঘের আক্রমণ,মৃত মৎস্যজীবী।

0
440

সুভাষ চন্দ্র দাশ,ক্যানিং –বৃহষ্পতি বার সকাল সাড়ে এগারোটা নাগাদ আবার ও বাঘের আক্রমণে মৃত্যু হল এক মৎস্যজীবীর। মৃত মৎস্যজীবীর নাম নিখিল মন্ডল(৫০)।মৃত মৎস্যজীবীর বাড়ি গোসাবা ব্লকের লাহিড়ীপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের চরঘেরী এলাকায়। স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে নিখিল মন্ডল নামে ওই মৎস্যজীবী দুজন সঙ্গীসাথী নিয়ে বৃহষ্পতিবার ভোরে ডিঙি নৌকা নিয়ে সুন্দরবনের গভীর জঙ্গলের ঝিলা ৪ নম্বরে কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন।এদিন সকালে নদী খাড়িতে নেমে কাঁকড়া ধরার জন্য দোন ফেলছিলেন তিনজন। সেই সময় সুন্দরবনের গভীর জঙ্গল থেকে একটি বেরিয়ে আসে। টার্গেট করে নিখিল কে। সুযোগ বুঝে আচমকা নিখিল মন্ডলের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে। তাকে টানতে টানতে গভীর জঙ্গলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। সেই মুহূর্তে অপর দুই সঙ্গী সাথী কাঁকড়া ধরার শিক আর নৌকার বৈঠা নিয়ে সঙ্গীকে বাঁচানোর উদ্যোগ নিয়ে বাঘের সামনে প্রতিরোধ গড়ে তোলে।দীর্ঘ প্রায় মিনিট ত্রিশ লড়াই চলে বাঘে মানুষে। পরিস্থিতি বেগতিক বুঝে রণে ভঙ্গদেয় দুই সঙ্গী। বাঘ তার শিকার নিয়ে গভীর জঙ্গলে পালিয়ে যায়। দুই সঙ্গীসাথী নৌকার বৈঠা বেয়ে দ্রুত গ্রামের ঘাটে ফিরে আসে। তারা ওই মৎস্যজীবীর পরিবারর লোকজন কে দুর্ঘটনার কথা জানায়। শোকে কান্নায় ভেঙে পড়ে ওই মৎস্যজীবীর পরিবার পরিজন। অন্যদিকে গ্রামে বেশকিছু মৎস্যজীবী দুর্ঘটনাস্থলে হাজীর হয়। সেখান থেকে নিথর দেহ উদ্ধার করে গ্রামে নিয়ে আসে।
সুন্দরবন ব্যাঘ্র প্রকল্প সুত্রে জানা গিয়েছে বৃহষ্পতিবার সকাল সাড়ে ১১ টা নাগাদ সুন্দরবনের ঝিলা ৪ নম্বর জঙ্গলে বাঘের আক্রমণে এক মৎস্যজীবীর মৃত্যু হয়েছে এমন ধরনের খবর পাওয়া গেছে।প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে ওই মৎস্যজীবীদের কাছে কোন বৈধ কাগজপত্র ছিল না।এমনকি নিষিদ্ধ এলাকায় কাঁকড়া ধরছিল।তবে কিভাবে এমন ধরনের ঘটনা ঘটলো সে বিষয়ে খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here