কালা,বোবা,কানা হয়ে গেলে সে দেখতে পায় না, খড়গপুর থেকে নির্বাচন কমিশনকে এভাবেই কটাক্ষ দিলীপ ঘোষের।

0
168

পূর্ব মেদিনীপুর, নিজস্ব সংবাদদাতা:- কালা,বোবা,কানা হয়ে গেলে সে দেখতে পায় না,রবিবার পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার খড়গপুর শহরের বোগদা এলাকায় বিজেপি কর্মী সমর্থকদের সাথে চা চক্র করে এমনটাই বলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি তথা মেদিনীপুরের সংসদ দিলি ঘোষ। অন্যদিকে ভোটের দিনে রাজ্যে রক্তগঙ্গা ভোট সন্ত্রাসের বলি ১৭জন?সেই বিষয় নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন যে তৃণমূল পরিবর্তনের শ্লোগান দিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল। মানুষ সেই জন্য তাকে সাপোর্ট করেছিল পরিবর্তন হবে। কিন্তু একি পরিবর্তন হলো। আগের থেকে বেশি ভয়ের পরিবেশ।বেশি ক্ষয়ক্ষতি। তৃণমূল হিংসা না করে একটা ভোটেও জিততে পারবে না। হাজার হাজার সেন্টাল ফোর্স এলো আমরা কোথাও বুথে দেখতে পেলাম না। কোন জেলায় নেই। তাদেরকে বসিয়ে রাখা হয়েছে, বাস নিয়ে ঘুরছে। চা খাচ্ছে,থানায় বসিয়ে রাখা হয়েছে। ইচ্ছে করে লুট করে জেতার চেষ্টা করেছে ওরা সেই জন্য গন্ডগোল বেশি হয়েছে। পাশাপাশি ভোটে মৃত্যু মিছিল তা সত্ত্বেও ১৭ জনের মৃত্যুর কথা মানছেন না কমিশন?,এই নিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন নির্বাচন কমিশনের চোখ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কান বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। কালা, বোবা,কানা হয়ে গেলে সে দেখতে পায় না। যেদিন থেকে ঘোষণা হয়েছে। সেই দিন থেকে হিংসা শুরু হয়েছে। সেই হিংসার বলি সবাই হয়েছে। পুলিশ কোথাও ছিল না। তৃণমূল বলছে আমাদের লোক মারা গেছে। যার লোক মারা যাক, এখানকার মানুষ তারা। কেন মারা যাবে। ভোটার মারা গেছে তারা কার মানুষ। এই লাগামহীন হিংসায় সার্বিকভাবে পশ্চিমবাংলার ইমেজ খারাপ হয়েছে। ভোট সম্বন্ধে মানুষের মনে ভয় বেড়ে গেছে। ঠিক এভাবেই কটাক্ষ করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি তথা মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের সাংসদ দিলীপ ঘোষ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here