আলু বেগুনের দম সব্জি : কার্তিক সাহু।

0
753

যারা নিরামিশ খাবার পছন্দ করেন আর যারা করেন না তাদের জন্যেও এটি খুব সুন্দর একটি পদ।গরম ভাতের সাথে অথবা সকালে রুটি ,লুচি বা পরোটার সাথে খেতে পারেন।আশাকরি ভালো লাগবে।
আমি দু জনের মতো বানিয়েছি আপনারা
আপনাদের প্রয়োজন মতো বানাবেন।

উপকরণঃ- 
ছোটো সাইজের বোঁটা সহ দুটো বেগুন
ছোটো সাইজের তিনটি আলু
গোটা জিরে-১/৪ চা চামচ
পাঁচ ফোড়ন-১/৪ চা চামচ
লঙ্কা গুঁড়ো- ১/২ চা চামচ
জিরে গুঁড়ো – ১/২ চা চামচ
ধনে গুঁড়ো -১/২ চা চামচ
হলুদ গুঁড়ো -১ চা চামচ
কালো গোটা সরষে বাটা – ১/২ চা চামচ
একটা শুকনো লঙ্কা
দুটো কাঁচা লঙ্কা
একটা তেজপাতা
আদা রসুন বাটা – ২চা চামচ
একটা ছোটো ছোটো করে কাটা পিঁয়াজ
একটা টমেটো ছোটো ছোটো করে কাটা
ঘি-১/২ চা চামচ
গরম মশালা -১/৪ চা চামচ
প্রয়োজন মতো তেল আর লবন

প্রনালীঃ-  আলু গুলো ছাড়িয়ে ধুয়ে নিন আর বেগুন দুটো ধুয়ে নিয়ে ওদের মাঝ বরাবর চিরে একটা ছুরির সাহায্যে ওদের ভেতরে লবন ভালো করে ঢুকিয়ে দিন।দেখবেন ওগুলো যেন গোটা থাকে। এরপর একটা কড়াইতে তেল দিয়ে ওতে ওই আলু আর বেগুন ভেজে তুলে নিন।এরপর ওই বেঁচে যাওয়া তেলে আর একটু তেল দিয়ে ওতে তেজপাতা, শুকনো লঙ্কা,গোটাজিরে,পাঁচ ফোঁড়ন দিয়ে একটু নাড়তে হবে যাতে মশলা পুড়ে না যায় এরপর একে একে আদা রসুন বাটা, পেঁয়াজ কুচি,সব গুঁড়ো মশলা দিয়ে নাড়তে থাকুন।এরপর সরষে বাটা দিয়ে নাড়তে থাকুন।এবার টমেটো কুঁচি দিয়ে একটু লবন দিয়ে নাড়তে হবে মশলা কষা হয়ে গেলে ওতে আলু গুলো আর কাঁচা লঙ্কা দিয়ে একটু কষিয়ে নিয়ে জল ঢালতে হবে ।ঝোল ফুটে উঠলে ওতে বেগুন গুলো দিয়ে প্রয়োজন মতো লবন দিয়ে মিনিট দশ দমে রাখতে হবে। আলু সেদ্ধ হঢয়ে এলে নামানোর আগে ঘি আর গরম মশলা দিয়ে নামিয়ে নিন।গরম গরম সার্ভ করুন।