মালতি রাভাকে সরিয়ে কোচবিহার জেলা বিজেপির সভাপতি করল বিধায়ক সুকুমার রায়কে।

0
362

নিজস্ব সংবাদদাতা, কোচবিহার: কোচবিহার জেলা বিজেপির সভানেত্রী মালতি রাভা রায় কে সরিয়ে নতুন জেলা সভাপতি করা হল সুকুমার রায় কে। সুকুমার রায় হলেন কোচবিহার উত্তর বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক। শনিবার দুপুরে বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদারের নির্দেশ মতো বিভিন্ন জেলার সভাপতির নাম ঘোষণা করা হলো। সেখানে বিজেপির কোচবিহার জেলা সভানেত্রী মালতি রাভা রায় কে সরিয়ে নতুন জেলা সভাপতি করা হয় সুকুমার রায়কে। পাশাপাশি এই জেলার ইনচার্জ বদল করা হয়েছে। এই জেলার ইনচার্জ হিসেবে নিযুক্ত করা হয় আগুন রায়কে। শুধু তাই নয় বিজেপির বিভিন্ন জোনের দায়িত্বপ্রাপ্ত পর্যবেক্ষকদের মধ্যে পুরনো অনেককে সরিয়ে সে জায়গায় নতুন বেশ কয়জনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে বলে বিজেপি সূত্রের খবর।
এবিষয়ে কোচবিহার জেলা বিজেপির নবনিযুক্ত সভাপতি সুকুমার রায় বলেন, ‘কোচবিহার জেলার দায়িত্ব বা সম্মান আমার হাতে দিয়েছে রাজ্য নেতৃত্বরা। তা আমি যথাযতভাবে পালন করতে পারি সেদিকে নজর দেব। আর সামনে কোচবিহার পুরসভার ভোট রয়েছে তাতে সবাইকে সঙ্গে নিয়ে আমরা তৃণমূলের সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে লড়াই করব। এবং সবাইকে নিয়ে জেলা কমিটি গঠন করে একসাথে চলার চেষ্টা করব।’
প্রাক্তন সভানেত্রী মালতি রাভা রায় বলেন, ‘আমাকে ২০১৮ সালে দায়িত্ব দিয়েছে আমি তা যথাযত ভাবে তা পালন করেছি। যাকে আমার পরিবর্তে দায়িত্ব দিয়েছে আমি তাতে খুশি। আমরা বাংলায় মধ্যে প্রথম হয়েছি সাংগঠনিক ভাবে। আমরা আমাদের জেলার আরও সুন্দর ভাবে যাতে আর সংগঠন টাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে পারি এবং আগামী দিনে বুথ থেকে পুরসভার সব জায়গায় সঠিক ভাবে সাজাতে পারি এবং শক্তিশালি করতে পারি সবাই মিলে মিশে কাজ করে জেলা সভাপতিকে সাহায্য করতে পারি সেই চেষ্টাই আমরা করছি।’
বিজেপি সূত্রে খবর, বিধানসভা ভোট, উপনির্বাচন, কলকাতার পুরভোটের বিজেপির ব্যর্থতাকে যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে দেখছে সংগঠন। সামনেই বাকি পুরসভায় ভোট রয়েছে। এই অবস্থায় বঙ্গ সংগঠনের খোলনলচে বদলে একেবার টাটকা লড়াই শুরু করতে মরিয়া পদ্মশিবির।