এক মহিলাকে গণধর্ষণ করে খুনের অভিযোগে এগরা থানার দুবদা এলাকায় উত্তেজনা।

0
140

পূর্ব মেদিনীপুর, নিজস্ব সংবাদদাতা:– পূর্ব মেদিনীপুর জেলার এগরায় এক গৃহবধূকে গণ ধর্ষণ করে খুন করার অভিযোগ উঠলো। ঘটনার প্রকাশ্যে আসার পর এলাকায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়িয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার এগরা থানার দুবদা গ্রামে,ঘটনার খবর পেয়ে হাজির হয় এগরা থানার পুলিশ।পাশাপাশি ওই মৃতদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে মৃত বধু পার্বতী রায় (৩৮)। তার বাড়ি এগরা থানার দুবদা গ্রামে। যদিও এ বিষয়ে মুখ খুলতে রাজি হয়নি পুলিশ আধিকারিকরা। এলাকার স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, ওই মহিলাকে ধর্ষণ করার পর প্রমাণ লোপাট করতে খুন করা হয়েছে। যদিও স্থানীয় বাসিন্দারা প্রকাশ্যে মুখ খুলতে রাজি হয়নি। সূত্রের খবর, পূর্ব মেদিনীপুর জেলার এগরা ২ ব্লকের দুবদা গ্রামের পার্বতী রায় নামে এক বধূ বাড়িতে একাই থাকতো। ওই বধুর স্বামী মানসিক ভাবে ভারসাম্যহীন। ছেলে কর্মসূত্রে ভিন রাজ্য মুম্বাইতে থাকে। ওই মহিলা কোন রকমের দিনমজুরি করে সংসার চালাতেন। বুধবার সকালে ওই মহিলার বাড়িতে অচৈতন‍্য অবস্থায় মহিলার মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখে স্থানীয়রা। পাশাপাশি বাড়ির কিছুটা অংশ ভাঙা।এরপর স্থানীয় বাসিন্দাদের তৎপরতায় খবর দেওয়া হয় এগরা থানার পুলিশকে,খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে আসে এগরা থানার পুলিশ। এলাকার বাসিন্দারা অনুমান বধূকে ধর্ষণ করার পর প্রমাণ লোপাট করার জন্য খুন করা হয়েছে। এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা বলেন “গ্রামের এক মহিলার বাড়ি থেকে অর্ধনগ্ন অবস্থায় মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে। সকালে গ্রামের লোকেরা এসে ডাকা ডাকি করে একটা ঘরের পাশে ভাঙা অবস্থায় পড়ে রয়েছে। নিচেই মহিলার মৃতদেহ পড়ে রয়েছে। ঘটনা স্থলে পুলিশ। প্রকৃত তদন্তের দাবি জানিয়েছে স্থানীয়রা।এগরা থানার এক পুলিশ আধিকারিক বলেন ” মহিলার মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ঠিক কি কারণে ওই মহিলার মৃত্যু হল ময়না তদন্তের রিপোর্টে এলে পরিষ্কার হবে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করা হয়েছে “। অন্যদিকে এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here