বীরভূমের সবচেয়ে প্রাচীন লক্ষ্মীপুজো হচ্ছে ঘোষগ্রামে, এই পৌষ মাসের প্রতি বৃহস্পতিবার বসে কড়ির মেলা, কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে “মহালক্ষ্মী মন্দির” নিমকাঠে নির্মিত প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হয় না ।

0
562

বীরভূম, নিজস্ব সংবাদদাতা:- বীরভূমের সবচেয়ে প্রাচীন লক্ষ্মীপুজো হচ্ছে ঘোষগ্রামে, এই পৌষ মাসের প্রতি বৃহস্পতিবার বসে কড়ির মেলা, কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে “মহালক্ষ্মী মন্দির” নিমকাঠে নির্মিত প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হয় না ।

পৌষ মাস লক্ষ্মী মাস হিসেবে চিহ্নিত।ধনের অধিষ্ঠাত্রী দেবী লক্ষ্মী। লক্ষ্মীর গ্রাম হিসেবে পরিচিত বীরভূমের সবচেয়ে প্রাচীন লক্ষ্মীপূজো অনুষ্ঠিত হচ্ছে ময়ূরেশ্বর ১ নম্বর ব্লকের “ঘোষগ্রামে”। লক্ষ্মী পুজো উপলক্ষে এই পৌষের প্রতি বৃহস্পতিবার বসে কড়ির মেলা। প্রচলিত বিশ্বাস অনুসারে এই মেলায় কড়ি কিনে তা মায়ের চরণ স্পর্শ করে বাড়িতে রেখে দিলে বাড়ির সুখ-সমৃদ্ধি শান্তি বৃদ্ধি পায় । তাই এই মেলায় প্রচুর পরিমাণে কড়ি বিক্রি হয়। প্রাচীন কাল থেকেই মাটির মন্দিরে লক্ষ্মীপূজা অনুষ্ঠিত হতো। লোকো শ্রুতি অনুসারে রাজা শশাঙ্কের সময়ে এই লক্ষ্মী পূজার প্রচলন হয় । পরে ১৮০৫ খ্রীঃ মুর্শিদাবাদ জেলার কান্দির তৎকালীন রাজা কৃষ্ণচন্দ্র সিংহ ওরফে লালাবাবু এখানে মা লক্ষ্মীর মন্দির স্থাপন করেন। কিন্তু কালের নিয়মে তা ধ্বংসপ্রাপ্ত হলে বর্তমানে কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত হয়েছে “মহালক্ষ্মী” মন্দির। এখানে মালক্ষ্মীর নিত্যপূজা হয়। নিম্বকাঠে নির্মিত লক্ষ্মী প্রতিমা বিসর্জন দেওয়া হয়না। আজ লক্ষ্মী পূজা উপলক্ষে বিশেষ পূজা-পাঠ, হোম-যজ্ঞ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। করোনা বিধি মেনে বসেছে গ্রামীণ মেলা।
ছবি ও তথ্য-সুকান্ত রায়, বীরভূম ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here