জীবনের লড়াই চালাতে শরীরের জোর না থাকলেও, শুধুমাত্র মনের জোরে হুইল চেয়ারে চেপে শান্তিপুর থেকে মাজদিয়ায় সেট পরীক্ষায় বসলো।

0
405

নদীয়া, নিজস্ব সংবাদদাতা:- জীবনের লড়াই চালাতে শারীরিক প্রতিবন্ধকতা বাধা হয়ে দাড়ালেও মনের জোর থাকলে সেই লড়াইয়ে চালানো যে সম্ভব, তার অন্যতম উদাহরণ নদীয়ার শান্তিপুরের প্রিয়াসা মহলদার। তার শরীরের উচ্চতা তিন ফুটেরও কম। হুইলচেয়ার ছাড়া হাটা চলার ক্ষমতা তার নেই। শুধুমাত্র মনের জোর নিয়ে প্রিয়াসা আজ ওয়েস্ট বেঙ্গল স্টেট এলিজিবিলিটি টেস্ট পরীক্ষায় বসেছেন। মাজদিয়া সুধীরঞ্জন লাহিড়ী কলেজের আলাদা একটি ঘরে কার্যত শুয়ে শুয়ে পরীক্ষা দিয়েছেন প্রিয়াশা। শারীরিক দিক দিয়ে বিশেষভাবে সক্ষম শত কষ্ট সহ্য করেও জানিয়েছেন,’ পরীক্ষায় বসতে পেরেছি আমার স্বপ্নপূরণের একটি ধাপ পূরণ হল। আরো এগিয়ে যেতে চাই।’ বাবা উত্তম হালদার, মা সুপ্রিয়া হালদারের সঙ্গে হুইল চেয়ারে বসে এদিন পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছেছিলেন। হুইল চেয়ার সহ প্রিয়াশাকে গাড়ি ভাড়া করে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল পরীক্ষা কেন্দ্রে। পরীক্ষায় সফলতা আসবে, সে বিষয়ে স্থির বিশ্বাস প্রিয়াসার।
জন্ম থেকে শারীরিক দিক দিয়ে বিশেষভাবে সক্ষম প্রিয়াশা। কিন্তু মনের জোরে এবার তিনি সেট পরীক্ষার্থী।