ট্রেন দুর্ঘটনায় মৃত কোচবিহারের বাসিন্দা সুভাষ রায়ের বাড়িতে গিয়ে দেখা করলেন জেলা তৃণমূল নেতৃত্বরা।

0
418

কোচবিহার, ১৫ জানুয়ারিঃ ময়নাগুড়ি ট্রেন দুর্ঘটনায় মৃত সুভাষ রায়ের পরিবারের সাথে দেখা করে পাশে থাকার আশ্বাস দিলেন রাজতের শাসক দল তৃনমূল কংগ্রেসের কোচবিহার জেলা নেতৃত্বরা। আজ তৃনমূল কংগ্রেসের কোচবিহার জেলার নেতা তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ ঘোষ, ১নং ব্লক পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ খোকন মিয়া, আইএনটিটিইউসি সভাপতি পরিমল বর্মন, কোচবিহার জেলা মহিলা সভানেত্রী সুচিস্মিতা দেবসর্মা সহ অন্যান্য কর্মীরা।
কোচবিহার জেলার নেতা তথা উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান রবীন্দ্রনাথ ঘোষ বলেন, “ট্রেনের কোচ গুলো খুবই খারাপ, আর ইঞ্জিনটিও অনেক পুরনো ছিল। ট্রেনে কেন্দ্র সরকার কোন রকম বিনিয়োগ করছে না শুধু টাকা তুলে নিচ্ছে। দুর্ঘটনায় মৃত পরিবার গুলোর সাথে আমরা আছি। আমরা তাঁদের বাড়িতে গিয়ে দেখা করে আসছি। প্রাথমিক ভাবে কিছু সহযোগিতাও করা হচ্ছে। ভবিষ্যতেও আমরা ওই পরিবার গুলোর পাশে থাকবো।”
পরিমল বর্মণ বলেন, “মর্মান্তিক দুর্ঘটনার শিকার হয়েছেন আমাদের কোচবিহার জেলার বেশ কয়েকজন। তাঁদের পরিবার গুলোর সাথে আমরা আছি। আমরা তাঁদের বাড়িতে গিয়ে দেখা করে আসছি। প্রাথমিক ভাবে কিছু সহযোগিতাও করা হচ্ছে। ভবিষ্যতেও আমরা ওই পরিবার গুলোর পাশে থাকবো।”
প্রসঙ্গত, বৃহস্পতিবার বিকেল ৫ টা নাগাদ গৌহাটিগামী বিকানির এক্সপ্রেস ময়নাগুড়ির দোমহনি স্টেশনের কাছে ভয়াবহ দুর্ঘটনায় পড়ে। ওই ঘটনায় এখনও পর্যন্ত ৯ জনের মৃত্যু হয়েছে। ওই জনের মধ্যে কোচবিহার জেলার পাঁচ জন রয়েছেন। ওই পাঁচ হলেন ঘোকসাডাঙা এলাকার রঞ্জিত বর্মণ(৪২)। পুন্ডিবাড়ি থানার পাতলাখাওয়ার বাসিন্দা মঙ্গল ওরাও(৪০), কোচবিহার ২ নম্বর ব্লকের মধুপুর কালপানি এলাকার বাসিন্দা সম্রাট কার্যী(১৭), কোচবিহার ১ নম্বর ব্লকের চান্দামারি এলাকার চিরঞ্জিত বর্মণ(২৩) এবং ওই ব্লকেরই সুভাস রায়(৩৮)। প্রত্যকের দেহ জলপাইগুড়ি থেকে বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। তাঁদের সৎকারও হয়ে গিয়েছে। রেল দফতর আর্থিক ক্ষতিপূরণের ঘোষণা ইতিমধ্যেই করে দিয়েছে। পাশপাশি রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা নেতৃত্ব যে ওই মৃতদের পারিবারের পাশে থাকবে, তা এদিন প্রত্যকের বাড়িতে গিয়ে জানিয়ে দিয়ে এসেছেন তাঁরা।