জলপাইগুড়ি পৌরসভা নির্বাচনে মনোনয়ন দাখিল করা নিয়ে এদিন ধুন্ধুমার কান্ড বেঁধে যায়।

0
407

জলপাইগুড়ি, নিজস্ব সংবাদদাতাঃ- জলপাইগুড়ি পৌরসভা নির্বাচনে মনোনয়ন দাখিল করা নিয়ে এদিন ধুন্ধুমার কান্ড বেঁধে যায়। একসময়ের তৃণমূল কংগ্রেস নেতা মলয় ব্যানার্জি ওরফে শেখর এদিন নির্দল প্রার্থী হিসেবে জলপাইগুড়ি পুরসভার ১ নম্বর ওয়ার্ড থেকে মনোনয়ন দাখিল করতে গেলে পুলিশ তাকে আটকে দেয় । এই নিয়ে পুলিশ কর্মীদের সঙ্গে মলয় বাবুর কর্মীদের ধস্তাধস্তি শুরু হয়ে যায়। মলয় ব্যানার্জি একা মনোনয়নপত্র দাখিল করতে যেতে চাইলেও পুলিশ তাকে বাধা দিয়েছে। তিনি এই নিয়ে জলপাইগুড়ি পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসারের কাছে জলপাইগুড়ি পুলিশের সদর ডিএসপি সমীর পাল জলপাইগুড়ি থানার আইসি অর্ঘ্য সরকার এবং একজন পুলিশ কর্মীর বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছেন। তার অভিযোগ দুপুর দুটোর সময় তিনি মনোনয়ন দাখিল করতে আসলেও তাকে তিনটা পর্যন্ত জোর করে আটকে রাখা হয়। এই ঘটনায় জলপাইগুড়িতে তীব্র রাজনৈতিক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। সিপিএম বিজেপি কংগ্রেস এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছে।

জলপাইগুড়ি পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার তথা এসডিও সুদীপ পাল এই বিষয়ে বলেন, তিনি মনোনয়ন দাখিল প্রক্রিয়ার কাজে কর্মে ব্যস্ত ছিলেন। বাইরে কি ঘটেছে সেটা তিনি জানেন না। বিষয়টি খোঁজ নিয়ে পুলিশের ঊর্ধ্বতন আধিকারিক তথা জেলাশাসক এর সঙ্গে কথা বলবেন বলে তিনি জানান। সুদীপবাবু বলেন, জনৈক ব্যক্তি মনোনয়ন দাখিল করতে আসলে পুলিশ তাকে বাধা দিয়েছে বলে লিখিত অভিযোগ করেছেন। কি কারণে পুলিশ তাকে বাধা দিল সেটা খতিয়ে দেখে তিনি জেলাশাসকের সঙ্গে আলোচনা করবেন। এই প্রসঙ্গে যুব তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি সৈকত চট্টোপাধ্যায় বলেন, যেকোনো ব্যক্তি নির্বাচনে দাঁড়াতে পারেন এবং মনোনয়ন দাখিল করতে পারেন। পুলিশ কি কারনে মলয় বাবুকে বাধা দিয়েছেন সেটা তিনি জানেন না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here