স্টেয়ারিং হাতে গাড়ি চালিয়ে দুস্কৃতির হাতে আক্রান্ত তরুণীকে হাসপাতালে পৌছে দিলেন তৃণমূল প্রার্থী।

0
340

বর্ণালী রায়; দক্ষিণ দিনাজপুরঃ নাম না করে তৃণমূল প্রার্থীর বিরুদ্ধে কটাক্ষ করে যখন এলাকায় এলাকায় ফ্লেক্স পোস্টারিং করতে ব্যাস্ত বিজেপি কর্মীরা সেই সময় উল্টো দিকে স্টেয়ারিং হাতে গাড়ি চালিয়ে দুস্কৃতির হাতে আক্রান্ত তরুণীকে হাসপাতালে পৌছে দিলেন তৃণমূল প্রার্থী। রবিবার রাত্রে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার বালুরঘাট শহরের ২২নং ওয়ার্ডের তেতুল তলা এলাকার তরুণী লাবন্যি সরকার(গুড্ডু) তার নিজের বাড়িতেই ছিলেন তার বয়স্ক দিদা-র সঙ্গে। স্থানীয় বাসিন্দাদের সূত্রে খবর সেই সময় একজন দুস্কৃতি মুখে কাপড় ঢাকা অবস্থায় ঐ তরুণীর বাড়িতে প্রবেশ করে তরুণীর উপরে চড়াও হয়। অভিযোগ ঐ দুস্কৃতি লাবন্যি সরকার-কে দরজার কাঠের বাটাম দিয়ে আঘাত করবার চেষ্টা করে। ঘটনার সময় ধস্তাধস্তিতে ঐ তরুণীর নাক ফেটে যায়। এরপর লাবন্যি সরকার-এর চিৎকার শুনে প্রতিবেশীরা ছুটে আসার আগেই ঐ দুস্কৃতি ঘটনাস্থল থেকে পালিয়ে যায়। দলীয় প্রচার শেষে দলীয় কার্যালয়ে বিশ্রাম নেওয়া ২২নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী প্রদীপ্তা চক্রবর্তী ঘটনার খবর পেয়ে তড়িঘড়ি লাবন্যি সরকার-এর বাড়িতে পৌছান। সে সময় লাবন্যি সরকার-এর নাক দিয়ে অঝোরে রক্ত ঝরতে থাকে, যা প্রত্যক্ষ করে তৃণমূল প্রার্থী তার গাড়ির চালকের জন্য অপেক্ষা না করে নিজেই গাড়ির স্টেয়ারিং হাতে নিয়ে গাড়ি চালিয়ে জেলা হাসপাতালের এমারজেন্সি বিভাগে নিয়ে যায়। হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসার পর বাড়ি ফিরে আসে লাবন্যি সরকার। জানা গেছে ঘটনার পর থেকেই লাবন্যি সরকার নামের ঐ তরুণী আতঙ্কের ঘোরে রয়েছেন। ঘটনায় বালুরঘাট থানায় লিখিত অভিযোগও দায়ের করেছে লাবন্যি-র পরিবার। অপরদিকে বিপদের সময়ে তৃণমূল প্রার্থী প্রদীপ্তা চক্রবর্তী পাশে দাঁড়ানোর ঘটনায় খুশি স্থানীয় বাসিন্দারা। ঘটনা প্রসঙ্গে ২২নং ওয়ার্ডের তৃণমূল কংগ্রেসের প্রার্থী প্রদীপ্তা চক্রবর্তী বলেন থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে, পুলিশ তদন্ত করে দোষীকে খুঁজে বের করুক। পাশাপাশি তার বিরুদ্ধে নাম না করে কটাক্ষ করে বিজেপির পক্ষ থেকে কার্টুনের ছবি আকা প্রচার ফ্লেক্স লাগানো নিয়ে পাল্টা কটাক্ষ করে তিনি বলেন ভাল মানুষদের চরিত্র হনন করা বিজেপির কাজ। তিনি আরও বলেন বিগত কয়েক বছরে সাধ্যমত যেটুকু মানুষের পাশে দাঁডানোর চেষ্টা করেছি তাতে ঐ কার্টুন আকা ফ্লেক্সগুলি যদি আমি নিজেও লাগাতাম তবুও মানুষ বিশ্বাস করবে না কারন এই শহরের সাধারণ মানুষরা প্রদীপ্তা চক্রবর্তী-কে তাদের বিপদের বন্ধু মনে করে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here