ফের উত্তপ্ত ভেটাগুড়ি, গুলি বোমা ছুঁড়ে খরের গাদায় আগুন লাগিয়ে দলীয় কর্মীর বাড়িতে হামলায় অভিযুক্ত তৃণমূলের নেতা।

0
279

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ বোমা গুলি ছুঁড়ে খরের গাদায় আগুন লাগিয়ে দলের এক কর্মীর বাড়িতে হামলা চালানোর অভিযোগ উঠল তৃণমূলের এক অঞ্চল সভাপতির বিরুদ্ধে। গতকাল রাতে দিনহাটা থানার ভেটাগুড়ি ২ নম্বর গ্রাম পঞ্চায়েতের শিঙ্গিজানি গ্রামে ওই ঘটনা ঘটেছে। অভিযোগ তৃণমূল কংগ্রেসের ভেটাগুড়ি ২ নম্বর অঞ্চল সভাপতি সুনীল রায় সরকার তাঁর দলবল নিয়ে ওই হামলা চালিয়ে পালিয়ে যায়। এরপর থানায় খবর দিলে পুলিশ ও দমকলের ইঞ্জিন ঘটনাস্থলে ছুটে আসে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ একটি তাজা বোমা ও গুলির খোল উদ্ধার করে নিয়ে যায়। দমকল কর্মীরা খরের গাদার আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।
আক্রান্ত দুই ভাই নিজেদের তৃণমূল কর্মী বলে দাবি করে জানান, গতকাল রাত ২ টা নাগাদ বোমার আওয়াজে তাঁদের ঘুম ভাঙে। পরপর দুটি বোমা বিস্ফোরণ হয়। চালানো হয় গুলিও। প্রাণে বাঁচতে কোন রকম ভাবে ঘরের পিছনে জানাল দিয়ে বের হয়ে পালিয়ে যায়। পরে আক্রমণকারীরা চিৎকার চেঁচামেচি করে সেখান থেকে চলে যায়।
এরপরেই এলাকার লোকজনকে ডেকে তুলে থানায় খবর দেন আক্রান্ত ওই দুই ভাই। তাঁরা অভিযোগ করে বলেন, “দলের যে অঞ্চল সভাপতি রয়েছে, তাঁর নেতৃত্বে ওই হামলা হয়েছে। তাঁর একটি ডাঙ্গোয়াল বাহিনী রয়েছে। তারাই এসব কাজ করে বেড়ায়।” অন্যদিকে ভেটাগুড়ি ২ নম্বর অঞ্চল তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি সুনীল রায় সরকার বলেন, “আমার বিরুদ্ধে মিথ্যে অভিযোগ আনা হয়েছে। ওই দুই ভাই তৃণমূলের সাথে যুক্ত নয়। শুনেছি ওদের ভাইদের মধ্যে জমি সংক্রান্ত বিবাদের জন্যই এমন ঘটনা ঘটেছে।”
রাজনৈতিক ভাবে বরাবর উত্তপ্ত দিনহাটার ভেটাগুড়ি এলাকা। এক সময় সেখানে বিজেপির সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি পাওয়ায় তৃণমূলের সাথে তাঁদের গণ্ডগোল লেগেই থাকত। বর্তমানে বিজেপি সাংগঠনিক ভাবে অনেকটাই দুর্বল হয়ে পড়েছে। ফলে তৃণমূলের গোষ্ঠী কোন্দল মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে বলে রাজনৈতিক মহলের ধারনা।