বাংলা বনধে মিশ্র প্রভাব পড়ল কোচবিহারে,বনধের বিরোধিতায় শহর জুড়ে মিছিল তৃণমূলের।

0
254

কোচবিহার, ২৮ ফেব্রুয়ারিঃ বিজেপির ডাকা ১২ ঘন্টা বাংলা বনধে মিশ্র প্রভাব পড়ল কোচবিহারে। সমবার সকালে কোচবিহার জেলার বিভিন্ন প্রান্তে এই বনধ সফল করার চেষ্টা করে বিজেপি। সকাল থেকে বিভিন্ন সরকারি অফিস, আদালতে ছুটে বেরায় বিজেপি কর্মীরা। যদিও এদিন সকালে বনধের বিরোধিতায় এবং সাধারণ জনজীবন স্বাভাবিক রাখতে তৃণমূল কংগ্রেস শহর জুড়ে মিছিল সংগঠিত করে। সেই মিছিল বাস টার্মিনাসে এসে শেষ হয়।এদিন ওই মিছিলে উপস্থিত ছিলেন এআইটিটিইউসি কোচবিহার জেলা সভাপতি পরিমল বর্মণ, খোকন মিয়া সহ অন্যান্য নেতৃত্বরা।
যদিও ওই মিছিলের পাল্টা বনধের সমর্থনে শহরে মিছিল করে বিজেপি। এদিন ওই মিছিলে উপস্থিত ছিলেন দলের জেলা সভাপতি তথা বিধায়ক সুকুমার রায়, কোচবিহার দক্ষিণ বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক নিখিলরঞ্জন দে সহ অনেকে। বিজেপির জেলা কার্যালয় থেকে মিছিল করে হাসপাতালের সামনে দিয়ে ভবানীগঞ্জ বাজার হয়ে শহরের বিভিন্ন এলাকা পরিক্রমা করে। এদিন উত্তরবঙ্গ রাষ্ট্রীয় পরিবহণ সংস্থার বাস আটকে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি সমর্থকরা। বিভিন্ন অফিস বন্ধ করে দেওয়ার চেষ্টা করে। যদিও পুলিস পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এদিন শহরে পুলিসি নিরাপত্তা ছিল চোখে পড়ার মতো।
এবিষয়ে এআইটিটিইউসি কোচবিহার জেলা সভাপতি পরিমল বর্মণ বলেন, গতকাল রাজ্যের ১০৮ পৌরসভার ভোটে ল্যাজে গোবরে হয়ে সন্ধ্যা বেলায় ১২ ঘন্টার বাংলা বনধ ডাকেন। বাংলার তাদের জন সমর্থন নেই, বুথে পোলিং এজেন্ট দেওয়ার লোক খুঁজে পায় না, তাদের পিছন থেকে সাধারণ মানুষের সমর্থন তুলে নিয়েছে। তার তারা যখন দেখল সাধারণ মানুষ তাদের পক্ষে নেই, সেই কারনে তারা বিশ্বের কাছে বাংলাকে ছোট করার চেষ্টার জন্য গতকাল এই বাংলা বনধের ডাক দিয়েন। এই বনধের কারনে সাধারণ মানুষের যাতে অসুবিধা না হয় সেই জন্য আমরা অশুভ শক্তির বনধের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছে সাধারণ মানুষ ও বিভিন্ন বাসের যাত্রীদের পাশে থাকার। আমরা চাই সাধারণ মানুষ ওই অশুভ শক্তির বনধকে ব্যর্থ করুক এবং এগিয়ে যাক যার যেখানে গন্তব্য স্থলে। তাদের পরিষেবা আমরা দেব এই আশ্বাস দেন তৃণমূলের শ্রমিক ইউনিয়ানের জেলা সভাপতি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here