অবশেষে সমস্ত উৎকণ্ঠার অবসান ঘটলো পূর্ব মেদিনীপুরের শহীদ মাতঙ্গীনি ব্লকের খারুই গ্রামের পাঁজা পরিবারের।

0
379

পূর্ব মেদিনীপুর, নিজস্ব সংবাদদাতা:- অবশেষে সমস্ত উৎকণ্ঠার অবসান ঘটলো পূর্ব মেদিনীপুরের শহীদ মাতঙ্গীনি ব্লকের খারুই গ্রামের পাঁজা পরিবারের। যুদ্ধবিধ্বস্ত পরিস্থিতির মাঝেই গতকাল রাত ২টা নাগাদ বাড়ি পৌঁছোলেন খারুই গ্ৰামের ডাক্তারী পড়তে যাওয়া ছেলে সব্যসাচী পাঁজা( ২৫)। সব্যসাচী ইউক্রেনের রুবজনির লুহানস্কে স্টেট মেডিক্যাল ইউনিভারসিটির কলেজের ছাত্র।২০১৭ সালে গিয়েছিলো ডাক্তারি পড়তে। কিন্তু হঠাৎ করেই ইউক্রেন ও রাশিয়ার মাঝে বাঁধে যুদ্ধ সেই যুদ্ধ কে উপেক্ষা করেই শত কষ্টে গত পয়ালা মার্চ মঙ্গলবার রাত ৩ টে নাগাদ ট্রেনে করে চলে যায় পোল‍্যান্ডে।তারপর ভারতীয় অ্যাম্বাসিডের একটি প্রতিষ্ঠানে আশ্রয় নিয়েছিলেন সব‍্যসাচী।সঙ্গে রয়েছিলেন আরো কিছু ভারতীয় বন্ধু।৩ রা মার্চ ওই দেশের সময় বিকেল ৩.১০ নাগাদ প্লেনে চাপে সে।দিল্লিতে নামে সব‍্যসাচী সকাল ৭ টা নাগাদ।এরপর পশ্চিম বঙ্গ সরকারের একটি প্রতিনিধিদল বঙ্গভবনে নিয়ে যায়।এরপর পূর্ব মেদিনীপুর জেলা শাসকের অফিস থেকে গাড়িতে করে বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হয়।এই মুহুর্তে আনন্দের পরিস্থিতি পাঁজা পরিবারের।তবে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও আবারো যাবে ডাক্তারি পড়তে ইউক্রেনে, জানায় সব‍্যসাচীর বাবা গদাধর পাঁজা।আর সব‍্যসাচীর কাতর অনুরোধ আরো যারা ওইখানে আটকে আছে তাদের ও যেন খুব তাড়াতাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া হয়।