সোমবার থেকে চালু হবে ক্যানিং মহকুমার বৈতরণী মহাশ্মশান।

0
285

সুভাষ চন্দ্র দাশ,ক্যানিং – ক্যানিং মহকুমা এলাকায় উন্নত মানের কোন শ্মশান না থাকায় মৃতদেহ সৎকার করার জন্য চরম সমস্যার সম্মুখীন হতে হতো এলাকার বাসিন্দাদের।এলাকার মানুষের সুবিধার জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্যানিংয়ে একটি বৈতরণী মহাশ্মশান তৈরী করার সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন। তাঁর সেই ইচ্ছা অনুযায়ী ক্যানিং মাতলা নদী সংলগ্ন সুন্দর মনোরম পরিবেশে তৈরী হয় বৈতরণী মহাশ্মশান।বিগত ২০২০ সালে ৭ জানুয়ারী শশ্মানের সুচনা করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী।এরপর করোনা তান্ডব শুরু হওয়া একাধিক মানুষের মৃত্যু হয়। সেই সমস্ত করোনাক্রান্ত মৃতদেহ গুলো বৈতরণী মহাশ্মশানে সৎকার করার জন্য সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়।সেই সময় জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে করোনাক্রান্ত মৃতদেহ গুলো ক্যানিংয়ের বৈতরণী মহাশ্মশানে দাহ করা হচ্ছিল।বর্তমানে কোভিড পরিস্থিতি উন্নত হওয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা এবং মৃতের সংখ্যা একেবারেই নেই বললে চলে।পরিস্থিতি ভালো হতেই সাধারণ মৃতদেহ দাহ করার জন্য আগামী ৭ মার্চ ক্যানিং মহকুমা বৈতরণী মহাশ্মশান খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ক্যানিং পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক পরেশরাম দাস।

উল্লেখ্য আজ থেকে এই মহাশ্মশান এ সাধারণ মৃতদেহ দাহ করার জন্য চালু হলে উপকৃত হবেন ক্যানিং মহকুমা এলাকা হাজার হাজার সাধারণ মানুষ সহ সমগ্র জেলার লক্ষাধিক সাধারণ মানুষ।