কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে বেহাল দশা ফাঁসিরঘাট ব্রিজের, ভোগান্তিতে স্থানীয় মানুষরা ।

0
15

কোচবিহার, নিজস্ব সংবাদদাতাঃ – গরমের পাশাপাশি বঙ্গে বর্ষার প্রকোপ। গত কয়েকদিনের টানা বৃষ্টিতে বেহাল দশা কোচবিহার ফাঁসিরঘাট ব্রিজের। বাঁশের সাকো ভেঙ্গে পুরো তোর্সা নদীর জলের নিচে। নদীর এক প্রান্ত থেকে আর এক প্রান্ত পর্যন্ত বাঁশের সাঁকো মাঝখানে ভেঙ্গে দু-ভাগ। নদীর এই পারের সাথে ওই পারের মানুষের সাথে যোগাযোগ ব্যাবস্থা প্রায় বিছিন্ন।
জানা গেছে, দীর্ঘ কয়েকদিন ধরে চলছে বৃষ্টি। সেই বৃষ্টির কারনে জলস্তর বৃদ্ধি হওয়ায় কার্যত কোচবিহারের ফাঁসিরঘাটের বাশেরসাঁকো জলের তলে। তবে প্রবল জলস্তর বৃদ্ধি হওয়ায় এই বাঁশের সাঁকো ভেঙ্গে যায়। আর এই বাঁশের সাঁকো ভেঙে পড়ায় নদী পারাপারে অসুবিধা সম্মুখীন হতে হচ্ছে দুই পাড়েরই মানুষের। তবে টাপুরহাট এলাকার মানুষের অনেকটাই অসুবিধার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। যেখানে খুবই কম সময়ে ১৩ থেকে ১৪ কিলোমিটার পথ অতিক্রম না করে দুই কিলোমিটার পথ অতিক্রম করলে খুব অল্প সময়ে কোচবিহার শহরে পৌঁছে যাওয়া যায়।
প্রতিদিনই প্রায় হাজার হাজার মানুষ এই পথ দিয়ে তাদের দৈনন্দিন জীবনের কর্মকাজ করেন। তবে এই বাঁশের সাঁকো ভেঙে যাওয়ার ফলে তাদের যাতায়াত ব্যবস্থা একেবারে বন্ধ হয়ে যায়। দীর্ঘদিন ধরে এই বাসের সাঁকো সরিয়ে ব্রিজ তৈরি করার আবেদন করেছিলেন সেতু আন্দোলন কমিটি। তবে বিভিন্ন জায়গায় তারা আন্দোলন করার পরেও কোন সুরাহা হয়নি। এর ফলে বর্ষা এলেই যখন ওই বাঁশের সাঁকো ভেঙে যায় তখন তাদের প্রায় ১২-১৩ কিলোমিটার পথ ঘুরে তাদের কোচবিহার শহরে আসতে হয় বলে জানান স্থানীয়রা।