স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র “Alien my friend” এর শিশু ‘তাতাই’ যেন মানুষের জীবনের বিশাল মহাকাশ প্রশ্নের এক অপূর্ব নক্ষত্র উত্তর……!

0
821

কলকাতা, সৌগত রাণা কবিয়ালঃ-একসাথে অনেক প্রশ্ন নিয়ে চুপচাপ বসে থাকা আমাদের প্রিয় এই শহুরে জীবনের গল্পটা ঠিক যেন টিকটিকির মতো “ঠিক-ঠিক” উচ্চারণে এক নিঃশ্বাসে সবটুকুই বলে দিয়ে গেলো “তাতাই”…!

বীর প্রোডাকশন এর প্রযোজনায় নির্মিত এই প্রজন্মের মেধাবী তরুণ নির্মাতা এবং চিত্রশিল্পী ‘শক্তিধর বীর’ এর রচনা, পরিচালনা ও সম্পাদনায় “Alien my friend” ( অন্য পৃথিবীর মানুষ ), সময়ের মেধাবী একটি অসাধারণ শিল্প হয়ে পকেট চলচিত্রের উচ্চতাকে বাড়িয়ে দিলো অনেকটা….!

“Alien my friend” স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটির মূখ্য চরিত্র ‘তাতাই’ এর মাধ্যমে, সব পাওয়ার এই স্কয়ারফিটের ঘরগুলোর ভেতর শিশুদের মনস্তাত্ত্বিক যান্ত্রিক যন্ত্রণার প্রতিচ্ছবিটিই যেন আমাদের চোখের সামনে বিমূর্ত হয়ে ফুটে উঠলো ….!

সম্পুর্ণ মোবাইলে চিত্রায়িত স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচিত্র “The Alien my friend” এর চিত্রপটে, ভাবনার বৈষম্য নিয়ে ক্রমাগত এগিয়ে চলা আমাদের এই সভ্যতায়, মানুষের জন্য অপেক্ষা করে করে ক্লান্ত একঘেয়ে জীবনের সুখ পোঁকাটি যেন ছটফটিয়ে প্রজাপতি হয়ে ফিরতে চাইলো আগামী প্রজন্ম-মননের ছায়া ছুঁয়ে..!

ছোট্র “তাতাই” নিজের এলিয়েন বন্ধুর হাত ধরে তার শিশু দৃষ্টিতে আমাদের জীবনের প্রাসঙ্গিক আত্ম-জিজ্ঞাসার মহাকাশ-বিশাল প্রশ্নটির উত্তর দিয়ে দিলো সময়ের ছোট্র এক নক্ষত্র আলোক বিন্দুতে…!

“Alien my friend” ( অন্য পৃথিবীর মানুষ ) স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটির পরিচালক, চিত্রশিল্পী
শক্তিধর বীর প্রান্তিক গ্রাম থেকে শহরে বাসা বাধা একজন মননশীল শিল্প অনুগ্রাহী মানুষ..! পরিচালক শক্তিধর বীর, তার শিল্প সাধনায় স‍্যারিয়ালিজম, মিথোলজি এবং নিজের একান্ত প্রান্তিক গ্রাম এর পথ ধরে চলা এমন একজন মানুষ, যিনি “কলকাতা ফিল্ম এন্ড টেলিভিশন ইন্সটিটিউট” থেকে সিনেমা নিয়ে পড়াশোনা করে নিজ প্রজ্ঞায় চলচিত্রের ভাবনাটাকে শুধুমাত্র প্রচলিত ধারায় প্রবাহিত না করে পথ হেঁটেছেন সেলুলয়েডের সাথে বোধের শিল্প সত্তার অনুভূতির
এক অপূর্ব সংমিশ্রণ নিয়ে…!
পরিচালকের ছোট ছবি ‘প্রাপ্তি’ দূরদর্শনে দেখানো হয়েছিল 2008 সালে, 2009 থেকে টলিগঞ্জ ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রীতে প্রফেশনালি কাজ করে তারপর তার ছোট ছবি ‘অস্তিত্ব’ মুম্বাই ওয়ান্টেড মিডিয়া ডট কমে পুরস্কৃত হয়, তার অন্য আরেকটি ছোট ছবি “সং অফ ইনোসেন্স “প্রদর্শিত ও প্রশংসিত হয় দেশ বিদেশের বহু জায়গায় এবং তার পাশাপাশি ছবিটির সিনেমাটোগ্রাফিতে স্পেশাল পুরস্কার অর্জন করে নেয়..! তার “মিশ্ররাগ” ছবিটিও প্রশংসিত হয় চলচিত্র অনুরাগী মহলে..! একাধিক সিনেমাতে সহ-পরিচালনা, স্ক্রিপ্ট রাইটিং এবং আর্ট ডিরেকশনে সাবলীল এই পরিচালকের হাতে লেখা পত্রিকা দালি’র আর্ট ডিরেকশান মনে রাখার মতো অন্যতম একটি সম্বৃদ্ধ কাজ…! পরিচালকের পুর্ণদৈর্ঘ‍্য ছবি “সুখপারিজাত” ফ্লাওয়ারস অফ হেভেন”এর কাজ শেষ হয়ে এখন মুক্তির অপেক্ষায়..!

পরিচালক শক্তিধর বীর এর ভাষায়, ”
আমার ‘অন্য পৃথিবীর মানুষ’ বা ‘এলিয়েন মাই ফ্রেন্ড’, আসলে কুড়িয়ে পাওয়া ষোলআনা সম্পদ আয়োজনে নির্মাণ করা হয়, এটি সিনেমা গঠনের উল্টোপুরাণের এক গান, যা বহু যান্ত্রিকতায় রচিত কোন সম্ভার নয়..! লকডাউনের বন্দীদশায় আমি, আমার সহধর্মিণী- সোমা ঘোষ বীর, আমার আট বছরের ছেলে- স্বর্ণাল বীর ও বন্ধু চিত্রগ্রাহক- প্রসেনজিৎ ঘোষ, এই চারজন মিলে নিভৃতে রচনা করেছি এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি..! এখানে দৃশ্যাবলীকে আমরা চেষ্টা করেছি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রকে অন্যমাত্রার এক ভাষায় সংস্থাপিত করতে”..!

আজকের দিনে সৃষ্টির কোমল জ্যামিতিক নকশায় বিদঘুটে অভিশাপ হয়ে আসা এই সভ্যতার কর্মফল-সময়ে ক্লান্ত মুখ তুলে আকাশের দিকে তাকিয়ে থাকা অসহায় মানুষের দিকে আঙ্গুল তুলে দেয়ার এই চলচিত্র “Alien my friend” এর মাধ্যমে ‘তাতাই’ আর তার এলিয়েন বন্ধু শিখিয়ে দিয়ে গেলো, ‘দম আটকে ফসিল হতে যাওয়া এই জীবনকে নিঃশ্বাস নেয়ার সহজ উপায়টি’…!

এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটিতে মেধাবী শিশু শিল্পী ‘স্বর্ণাল বীর’ এর ‘তাতাই’ চরিত্রের অনবদ্য রূপায়নের মাধ্যমে ফুটে উঠলো, ‘প্রত্যাশার চাপে শিশু মনের ভেতর বয়ে চলা রক্তক্ষরণ লুকিয়ে রাখতে রাখতে ক্লান্ত হয়ে প্রকৃতির কাছে আশ্রয় নিতে চাওয়া আমাদের সমাজের ছোট্র “তাতাইরা” কি করে নিজের গল্পের ছলে মানুষের মনে এঁকে দিতে পারে সভ্যতার অভিশাপ থেকে মুক্তির মান পত্র…!

চলচিত্রটির ইউটিউব লিঙ্ক–

সৌগত রাণা কবিয়াল
( কবি সাহিত্যিক ও কলামিস্ট )

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here