‘উপযোগী’ নয় ‘উপযুক্ত’ হয়ে উঠুক মানুষের সংজ্ঞা : সৌগত রাণা কবিয়াল।

0
1008

বালুচরে সিদ্ধহস্ত,
সিদ্ধান্তের ভুল মস্ত….!

গলা কেটে দাওয়াই দেওয়ার দাওয়াখানা এই মুহুর্তের সৌরজগতের মানব সীমানা আমাদের প্রিয় ‘পৃথিবী’….!

কার জাত গেলো, কার খুললো বিশ্ব রাজত্বের সিংহদুয়ার..??
প্রপাতের নিচে ধোয়াসায় শত-সহস্র প্রশ্ন ভোরের আলোর সাথে পাল্লা দিয়ে ছুটছে মানুষের ড্রয়িং রুমের তরঙ্গ পর্দায়…!

তাহলে কি সম্ভবত, এটা ‘মানুষ’ এর জন্য মানুষের সৃষ্টি ইতিহাসের গভীর যুদ্ধ..? নাকি সভ্যতার কর্মফলে প্রকৃতির তিরস্কার…?

আলু-পেয়াজ- চাল- নুন…
অহংকারী হাভাতে বাঙালীর ঘরের বাইরেও ষোললকের তালা ঝুলছে.. বাজারের চৌহদ্দির মধ্যে লক্ষণরেখার বৃত্ত পাশা…
এ যেন এক অদ্ভুত পাশাখেলা..
কেবল জয়ী হলেই তুমি ফিরে পাবে অরণ্যের দিনরাত্রি.. সাথে সাথে আবার ঘুরবে সভ্যতার স্বর্ন রথের চাকা…!

তাহলে দাওয়াই টা কি????

ভার্চুয়াল জগতের নাক মুখ ডুবিয়ে মানুষ হাপিত্যেশ হয়ে খুঁজছে গরম জলের ঠিক কতোটা প্রয়োগে নিশ্বাসের চারপাশ থেকে এবারের মতো যমের কপালে তিলক এঁকে দেয়া যায়…!
আর অন্যদিকে এই মুখোশের দরদাম বাজারে, বিশ্বরাজনীতির ময়দানে পেছনে বসে চুপচাপ ভাবছেন হয়তো বিধাতা..
” বিধান যতোটা দিয়েছিলাম, ভাগ্যও তো দিয়েছিলাম ঠিক ততোটাই…! এবার তোমাদের ভেবে দেখার জন্য অফুরন্ত অবসর প্রিয় মানুষ…
তুমি কুষ্ঠি বিচারে বাঁচবে..? নাকি তোমার কর্ম বিচারে…?”

অথচ ভাবনার আকাশের চিরকালের মতো মানুষের মধ্যে বোকা অমানুষের আদলটা ঠিক রয়েই গেলো হয়তো…!
যখন ভাবার কথা ছিলো, তখন আধুনিক মানুষের বিন্দুমাত্র দম ফেলার সময় ছিলো না..! আজ ভাবার জন্য অফুরন্ত অবসর, অথচ বেচারা ভাবনাটাই খোদ নিখোঁজ…?
তাহলে উত্তরের জন্য দরজা জানালা বন্ধ করে আর কি লাভ…??

পরের কান টানতে টানতে আমাদের বড্ড সুখের অভ্যেস হয়ে গেছে.. অথচ কান টানতে গেলে হাতের কানের নাগালের মধ্যে শুন্য দুরত্ব থাকতে হয় যে..!
পৃথিবীর বুকে কেও দ্বাপরের কৃষ্ণের মতো প্রেমের বাঁশি বাজায় না, অবতার-ঈশ্বর মিলেমিশে গেছে বহুকাল আগে.. এখন তিনি আর নিয়ম বলেন না.. সোজাসাপ্টা সাজা দেন…!
এবার ভেবে দেখো বেচারা.. কোনটা চাই তোমার…?
“সিদ্ধহস্ত প্রজন্ম প্রজনন নাকি অবোধের সাথে বোধের কথোপকথন”…?

জ্বালা কিন্তু উভয় দিকেই….!
এবার বাঁচলে গাজী কিন্তু মরলে শহীদ.. ব্যাপারটা এমন নয় মোটেও…!
মানবতার চাইতে বড় কোন ধর্মের ঘর খোলা নেই পৃথিবীর কোন প্রান্তে..!
এবার তাহলে উত্তরটা নিজের মতো না ভেবে.. একটু সবার মতো ভেবে দেখি না হয়….!

কি..? কেন..? কিভাবে..?

প্রশ্নগুলোকে মাটিচাপা দিয়ে এক নিয়মের গ্রন্থটাই না হয় পড়া যাক এবার….!
এতে অন্তত যাই হোক না কেন..
পৃথিবীতে মানুষের জন্য নতুনভাবে আবিষ্কার হবে ঠিকঠাক বেঁচে থাকার মানেটা…!

সময় ঠিক কেটে যাবে…
পৃথিবীর সব বন্ধ চারদেয়ালের ঘরগুলোতে আবার সুর তুলে গাইবে মানুষের জীবনের হাসি-কান্নার ধারাপাত….!
আপাতত পারাপারের জন্য হাতে হাত নয়.. মনে মন রেখে সমগ্র বিশ্বটাকে এক সুতোতে গেঁথে নেয়ার সময় এসেছে…!

যদি প্রকৃতি আর মানুষের ভাষা এক হয়, তবে নিশ্চিত নতুন ভোরের আলোয় শহরের উৎসব গুলোয় আবারও খিলখিল করে সুখ হাসবে..!
আপাতত আমাদের ভেতরের দানবটাকে না হয় ধুয়েমুছে পাপ মুক্ত করি, বাতাস জীবাণু মুক্ত হয়ে যাবে ঠিক সময় এলেই…..!

দুঃখজনক হলেও মজার ব্যাপার হচ্ছে যে এবারের গল্পটা তো শুধু ট্রেইলার..
যদি নিজেদেরকে চিনতে আবার ভুল করে ফেলি আমরা..
তবে নিশ্চিত তখন ‘সভ্যতা অভিশাপ’ নামক ছায়াছবির পুরোটাই মানুষের জন্য থ্রিলার সিরিজ হয়ে ধারাবাহিক ভাবে ফিরে ফিরে আসছে….!

একমাত্র দাওয়াই…
“আমি থেকে আমরা”…..
কেবল আমরা ভালো থাকলেই রাতটা তারাতাড়ি ছুটি দিয়ে দেবে এই দুঃস্বপ্নের ঘুম থেকে….!

সকলে ভালো থাকুন.. ভালো রাখুন আপনার প্রিয় মনুষ্যত্বকে…!

সৌগত রাণা কবিয়াল
( কবি সাহিত্যিক ও কলামিস্ট )

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here