তৃতীয় ঢেউয়ে এই প্রথম করোনা আক্রান্ত হৃদরূগী মারা গেলেন নদীয়ার শান্তিপুরে।

0
374

নদীয়া, নিজস্ব সংবাদদাতা :- করোনার তৃতীয় ঢেউয়ের প্রভাব যে কোনভাবেই কমেনি, তা আরো একবার প্রমান হলো তরতাজা একটি প্রাণ চলে যাওয়ার বদলে। হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়
আজ সন্ধ্যায় শান্তিপুর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে হৃদ রোগ সংক্রান্ত সমস্যায় ভর্তি হন শান্তিপুর শহরেরই 66 বছরের এক বৃদ্ধ। ভর্তি হওয়ার সাথে সাথেই তাকে RAT পরীক্ষা করা হয় এবং তাতে করোনা পজিটিভ রিপোর্ট লক্ষ্য করা যায় ।পরিস্থিতি আশঙ্কাজনক হওয়ায় একদিকে যেমন তার প্রাথমিক চিকিৎসা শুরু হয়েছিল অন্যদিকে কল্যাণী হাসপাতালে স্থানান্তরিত করার কাগজপত্র তৈরি হচ্ছিল। ইতিমধ্যেই মৃত্যু হয় ওই বৃদ্ধের। বর্তমান নিয়ম অনুযায়ী পরিবারবর্গের হাতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ তুলে দেয় পিপিই কিট, যা পড়ে এবং মৃতকে পরিয়ে অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া সম্পন্ন করার উদ্দেশ্যে রওনা দেয় হাসপাতাল থেকে।
প্রথম এবং দ্বিতীয় ঢেউ তে শান্তিপুর হাসপাতাল এবং শান্তিপুর ব্লকের নিজ গৃহে করোনা আক্রান্ত হয়ে মোট মারা যায় 67 জন। শান্তিপুরের মোট আক্রান্ত সংখ্যা দেখতে দেখতে 3909 জন। আজও 6 জন আক্রান্ত হয়েছে। তবে তৃতীয় ঢেউতে এই প্রথম মৃত্যু। স্বভাবতই, মাস্ক বিহীনভাবে বাজার হাট সর্বত্র ভিড় করা নিয়ে প্রশাসনিক ধরপাকড় যে যথেষ্টই ইঙ্গিতপূর্ণ তা বোঝা যাচ্ছে। হাসপাতাল সুপারেন্টেন্ড ডক্টর তারক বর্মন ইতিমধ্যেই মাস্ক বিহীনভাবে হাসপাতালে প্রবেশ নিষিদ্ধ করার বার্তা দিয়েছেন রোগী এবং রোগীর পরিবার, সেই অনুযায়ী 24 ঘন্টা সাউন্ড সিস্টেমের বাজছে সতর্কতাঃ বার্তা।
আজ জেলার কল্যাণী জহরলাল নেহরু মেমোরিয়াল হাসপাতালে চারজন ডাক্তার সহ 13 জন মেডিকেল কলেজের ছাত্র করোনা আক্রান্ত হয়।
ইতিমধ্যে জেলার বিভিন্ন হাসপাতালে করোনার চিকিৎসার পরেও মোট মৃত্যু হয়েছে 970 জনের, জেলার অধিবাসী জেলার বাইরে চিকিৎসারত অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে 220 জনের। আক্রান্ত সংখ্যাও কম নয় দেখতে দেখতে 55683 জন।
স্বভাবতই সব মিলিয়ে করোনা পরিস্থিতি নিয়ে রাজ্যের যথেষ্ট উদ্বেগ রয়েছে নদীয়া কে নিয়েও।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here