অস্থায়ী কর্মীদের পুনরায় কাজে নিয়োগের দাবিতে বুধবার মধ্যরাত পর্যন্ত মালদা মেডিকেল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ডা: পুরঞ্জয় সাহাকে অফিসের মধ্যে ঘেরাও করে রাখা হলো।

0
259

মালদা , নিজস্ব সংবাদদাতাঃ-  অস্থায়ী কর্মীদের পুনরায় কাজে নিয়োগের দাবিতে বুধবার মধ্যরাত পর্যন্ত মালদা মেডিকেল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ডা: পুরঞ্জয় সাহাকে অফিসের মধ্যে ঘেরাও করে রাখা হলো। এই ঘটনার খবর পেয়ে রাতেই ইংরেজবাজার থানার বিশাল পুলিশবাহিনী মালদা মেডিকেল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপালের অফিসে সামনে পৌঁছায় । কিন্তু পুলিশের সামনেই চলে অস্থায়ী কর্মীদের তুমুল বিক্ষোভ। ১৩৫ জন অস্থায়ী কর্মীরা ভাইস প্রিন্সিপালের অফিসের সামনে বসে থেকেই তাকে ঘেরাও করে রাখে। বিক্ষোভকারী অস্থায়ী কর্মীদের অভিযোগ , রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর মেডিকেল কলেজের অস্থায়ী কর্মীদের পুনরায় নিয়োগের নির্দেশ দেওয়ার পরেও মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ এব্যাপারে চরম উদাসীনতা দেখাচ্ছে। দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে কাজ হারিয়ে চরম সংকটের মুখে পড়েছেন মেডিকেল কলেজের অস্থায়ী কর্মীরা । কেন তাদেরকে কাজে পুনর্বহাল করা হচ্ছে না তারিখ কৈফিয়ত তলব করা হয় এদিন। এরপরই মধ্যরাত পর্যন্ত ভাইস প্রিন্সিপালকে ঘেরাও করে রাখেন মেডিকেল কলেজের বিক্ষোভকারী ১৩৫ জন অস্থায়ী কর্মী । মূলত মহিলারাই এদিন মেডিকেল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপালকে ঘরের মধ্যেই ঘেরাও করে রাখেন।
বিক্ষোভকারী অস্থায়ী কর্মীদের বক্তব্য , পুজোর আগে তাদেরকে কাজ থেকে ছাঁটাই করার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল মালদা মেডিক্যাল কলেজ কর্তৃপক্ষ । এরপর টানা ছয় মাস ধরে অবস্থান-বিক্ষোভ চালিয়েছেন তারা । পরবর্তীতে রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর মালদা মেডিক্যাল কলেজের ১৩৫ জন অস্থায়ী কর্মীকে কাজে পুনর্বহালের একটি নির্দেশ জারি করে। কিন্তু সেই নির্দেশ জারির প্রায় দু’মাস কেটে গেলেও মালদা মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ এক্ষেত্রে চরম উদাসীনতা দেখাচ্ছে ।
এদিন বিক্ষোভকারী অস্থায়ী মহিলা কর্মী শর্বরী লাহিড়ী বলেন, রাজ্য সরকার আমাদের কাজে পুনর্বহাল করার নির্দেশ দিয়েছে। কিন্তু মালদা মেডিকেল কলেজ কর্তৃপক্ষ কাজে নেওয়ার কোন ব্যবস্থায় করছে না। ফলে কয়েক মাস ধরে সংকটের মধ্যে আমাদের কাটতে হচ্ছে। এই ১৩৫ জন অস্থায়ী কর্মীদের মধ্যে কেউ গ্রুপ ডিতে কাজ করেন , কেউ ল্যাপ টেকনিশিয়ান, আবার কেউ ডাটা এন্ট্রি অপারেটরের কাজে যুক্ত রয়েছেন। প্রত্যেকে কাজ হারিয়েছেন। যার ফলে অসন্তোষ ছড়িয়েছে অস্থায়ী কর্মীদের মধ্যে। আমরা কবে কাজে যোগ দিতে পারবো, তারই দাবি জানিয়ে মধ্যরাত পর্যন্ত ভাইস প্রিন্সিপালকে আটক করে রেখেছি ।পরে অবশ্য পুলিশ ও প্রশাসনের আশ্বাসে বিক্ষোভ তুলে নিয়েছি । চাকরিতে নিয়োগ না করলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দিয়েছে অস্থায়ী কর্মীরা।
যদিও এব্যাপারে মালদা মেডিক্যাল কলেজের ভাইস প্রিন্সিপাল ডক্টর পূরঞ্জয় সাহা জানিয়েছেন , ওই অস্থায়ী কর্মীদের কাজে পুনর্বহালের প্রক্রিয়া চলছে । এর বেশি আর কোনো মন্তব্য করতে চান নি তিনি।

ছবি —– মালদা মেডিকেল কলেজে মধ্যরাত পর্যন্ত অস্থায়ী কর্মীদের ভাইস প্রিন্সিপালকে ঘেরাও বিক্ষোভ।