মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগে ছেলে-মেয়ের চিকিৎসা করাতে এসে প্রেসক্রিপশনের ওষুধ এন্ট্রির লাইনেই দারিয়ে থাকার সময় ব্যাগ কেটে এক মহিলার পকেটমারি হল ।

0
266

নিজস্ব সংবাদদাতা, মালদাঃ-মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বহির্বিভাগে ছেলে-মেয়ের চিকিৎসা করাতে এসে প্রেসক্রিপশনের ওষুধ এন্ট্রির লাইনেই দারিয়ে থাকার সময় ব্যাগ কেটে এক মহিলার পকেটমারি হল ব্যাগে রয়েছিল অ্যান্ড্রয়েড মোবাইল ফোনসেট, নগদ টাকা। এখন ওষুধ কিনে বাড়ি ফেরার টাকা নেই চিন্তায় পরে ওই মহিলা, প্রেসক্রিপসন নিয়ে বাইরে যখন ওষুধ কিনতে যান তখনই দেখতে পান যে তার ব্যাগ কেটে সমস্ত কিছু খোয়া গিয়েছে। এরপর হাসপাতালে ফিরে এসে কান্নায় ভেঙে পড়েন ওই মহিলা। কি করে শিশুদের ওষুধ কিনবেন বা কি করে বাড়ি ফিরবেন সেই চিন্তায় মাথায় পড়ে হাত। জানা গিয়েছে ওই মহিলার নাম মাম্পি রানা ইংরেজবাজার শহরের গয়েশপুরের বাসিন্দা ওই মহিলা চপ- ঘুঘনি দোকান করে সংসার চালান। মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল চত্বরে
একের পর এক এই ধরনের পকেটমারি ঘটনায় নিরাপত্তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে চিকিৎসা করতে আসা সাধারণ মানুষ । মাম্পি রানা বলেন, স্বামী কোন কাজ করে না। চপ-ঘুগনি বিক্রি করে আমি সংসার চালাই। ছেলে ও মেয়ে অসুস্থ থাকায় মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আউটডোরে চিকিৎসা করাতে এসেছিলাম। কিন্তু আমার ব্যাগ কেটে এভাবে যে টাকা ও মোবাইল চুরি হয়ে যাবে তা আমি ভাবতে পারিনি। এখন আমি কি করে ছেলে মেয়ের ওষুধ কিনবো তা কিছু ভেবে কুল পাচ্ছিনা।