বিধায়কের প্যাড ও সই জাল করে বাংলাদেশীদের কাছে মোটা টাকা বিক্রি।

0
1160

সুভাষ চন্দ্র দাশ,ক্যানিং –  বাংলাদেশীদের কাছে মোটা টাকায় বিক্রি করা হয়েছে খোদ বিধায়কের নকল সই করা জাল প্যাড। ইতিমধ্যেই বিষয়টি নিয়ে তদন্তে নেমে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করেছে ক্যানিং থানার পুলিশ। ধৃতের বাড়ি জীবনতলা থানার অন্তর্গত মনসাপুকুর এলাকায়। ধৃতের নাম মোরজান পিয়াদা। অভিযুক্তকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে ক্যানিং থানার পুলিশ।

অভিযোগ, অভিযুক্ত ওই যুবক ক্যানিং পশ্চিম বিধানসভার বাঁশড়া  গ্রাম পঞ্চায়েতের বাসিন্দা।ক্যানিং পশ্চিম বিধানসভার বিধায়ক পরেশরাম দাসের প্যাড জাল করে এবং নকল সই করে তাতে রেসিডেন্সিয়াল সার্টিফিকেট দেওয়া হতো। মোটা টাকার বিনিময়ে তা বিক্রি করা হতো বাংলাদেশীদের কাছে।অভিযোগ শুধু ক্যানিং নয়‘ মুম্বাইয়ের বেশ কয়েকজন বাংলাদেশীদের কাছে এই প্যাড বিক্রিও করা হয়েছে সাত থেকে দশ হাজার টাকার বিনিময়ে। এক ব্যক্তির থেকে অভিযোগ পেয়ে ক্যানিং থানায় অভিযোগ জানান বিধায়ক নিজেই। বিধায়ক পরেশরাম দাস বলেন, রাজ্য সরকারের ভাবমূর্তি নষ্ট করতেই কিছু অসাধু মানুষ আমার জাল সই করা প্যাড দিয়েছে বেশ কিছু বাংলাদেশি মানুষদের কাছে। পুলিশকে আইনানুগ ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে।

মূলত আধার কার্ড এবং ভোটার কার্ড তৈরী করতে গেলে বিধায়কের প্যাডে রেসিডেন্সিয়াল সার্টিফিকেট নিতে হয়। মূলত সেই রেসিডেন্সিয়াল সার্টিফিকেটের জন্যই বিধায়কের প্যাড জাল করা এবং নকল সই করা হয়েছে। বাঁশড়া গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা তে বেশকিছু বাংলাদেশিরা অবৈধভাবে ভারতের নাগরিকত্বের বিভিন্ন প্রমাণপত্র জোগাড় করে ফেলার কারণে ওই এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে ভোটার কার্ড সংশোধনের কাজ স্থগিত রাখা হয়েছে প্রশাসনের তরফ থেকে। এই ঘটনায় আর কে বা কারা জড়িত তা ও তদন্ত করে দেখছে ক্যানিং থানার পুলিশ।