নির্বাচনের পরের দিন বৈদ্যপুর অঞ্চলের পার্বতী ডাঙ্গা বাজারে বিজেপি – তৃণমূলের সংঘর্ষ, অভিযোগ একে অপরের বিরুদ্ধে, আহত দুই পক্ষের বেশ কয়েকজন।

0
167

নিজস্ব সংবাদদাতা, মালদা:—পঞ্চায়েত নির্বাচন নির্বিঘ্নে শেষ হতেই প্রতিহিংসার থামেনি, নির্বাচনের পরের দিন বৈদ্যপুর অঞ্চলের পার্বতী ডাঙ্গা বাজারে বিজেপি – তৃণমূলের সংঘর্ষ শুরু হয়, লিখিত অভিযোগ জানাবেন একে অপরের বিরুদ্ধে, আহত দুই পক্ষের বেশ কয়েকজন l

বিজেপি প্রার্থী তথা বৈদ্যপুর অঞ্চলের বিদায় প্রধান ববিতা ভৌমিকের অভিযোগ গতকাল শনিবার ভোট কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ করার সময় আনুমানিক সন্ধ্যা ছটা নাগাদ ১৫৭ নং বুথে ছাপ্পা ভোট করার চেষ্টা করে এবং বাধা দিতে তাদের সাথে বচসা হয় এরপরে ভোট শেষ হওয়ার পর রবিবার সকাল আটটা নাগাদ শাসকদলের লোকজন নিয়ে বিজেপি প্রার্থী ববিতা ভৌমিকের পার্বতী ডাঙ্গা বাড়ির পাশের রাস্তায় তার চুলের মুঠি ধরে কিল চড় দিয়ে মারধর করে এবং সেই সময় গ্রামের লোকজন আশায় সে প্রাণে রক্ষা পায় এবং গ্রামের লোকজন তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে বুলবুলচন্ডী গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে যায় চিকিৎসার জন্য এবং হবিবপুর থানায় শাসক দলের বেশ কয়েকজনের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানাবে বলে জানিয়েছেন l


পাল্টা তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে সমস্ত অভিযোগ কে ভিত্তিহীন বলে দাবি করেন উত্তর বৈদ্যপুর অঞ্চলের তৃণমূল কংগ্রেসের চেয়ারম্যান অশনি রায়, তিনি জানিয়েছেন গতকাল শনিবার ১৫৭ বুথে ভোট প্রক্রিয়া সম্পন্ন হওয়ার পর সমস্ত ব্যালট বক্স গাড়িতে উঠানোর সময় বিজেপির দলবল গাড়ি উল্টে দেয় এবং ডিসাইডিং অফিসার কে মারধর করে বলে অভিযোগ করেন,, সে সময় এলাকার এক বাড়িতে আশ্রয় নিলে সে বাড়িতেও হামলা হয় বলে অভিযোগ, এরপর রবিবার সকালবেলা এলাকায় অশনি রায় সহ কয়েকজন চায়ের দোকানের চা খাচ্ছিলেন সে সময় ববিতা ভৌমিক তার লোকজনকে নিয়ে এসে তার কলার ধরে তাকে আঘাত করেন এবং তাকে এবং তার স্ত্রী সহ কয়েকজনকে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ,, এই ঘটনায় এলাকায় তৃণমূল কর্মীরা বাড়ি থেকে ভয়ে বেরোতে পারছে না বলে জানিয়েছেন,এখন পাশ থেকে জনসাধারণ সরে যাচ্ছে বলে এইসব কাজ করছে বলে জানিয়েছেন,, তারা বুলবুলচন্ডী গ্রামীণ হাসপাতালে চিকিৎসা করেন এবং হবিবপুর থানায় বিজেপি প্রার্থীর তথা বিদায় প্রধান ববিতা ভৌমিক এর বিরুদ্ধে হবিবপুর থানায় লিখিত অভিযোগ জানাবেন বলে জানিয়েছেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here