তুফানগঞ্জে ফের বিজেপিতে ভাঙ্গন,ভানুকুমারী ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের ২ পঞ্চায়েত সদস্যা বিজেপি ছেড়ে যোগ দিল তৃনমূল কংগ্রেসে।

0
25

মনিরুল হক, কোচবিহারঃ ফের তুফানগঞ্জে বিজেপির ভাঙ্গন অব্যাহত। এদিন তুফানগঞ্জ ২ নং ব্লকের ভানুকুমারী ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েতের দুই পঞ্চায়েত সদস্যা বিজেপি ছেড়ে যোগ দিল তৃনমূলে। এদিন কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের নিউটাউন কার্যালয়ে উপস্থিত হয়ে পঞ্চায়েত সদস্যা সীমা দাস ও পদিকা বর্মণ বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন। তাদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিক। এদিন সেখানে উপস্থিত ছিলেন তুফানগঞ্জ ২ নং ব্লকের সভাপতি চৈতি বড়ুয়া, জেলা পরিষদের সদস্য নিরঞ্জন সরকার, সুবল দাস সহ অন্যান্য নেতৃত্বরা।
সদ্য বিজেপি ছেড়ে তৃনমূলে যোগদানকারী এক পঞ্চায়েত সদস্যা জানান, মানুষের ভোটে আমরা জয়ী হয়েছি। দীর্ঘ ৫ বছরের জন্য আমরা পঞ্চায়েত হয়েছি। তার মধ্যে ১ বছর কেটে গেল। এলাকার লোকের কোন উন্নয়ন করতে পারি নি। তাই বাকি চার বছর যাতে এলাকার মানুষের উন্নয়ন করতে পারি তাই আজ আমরা বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলাম। তৃণমূল নেতৃত্বরা আগামী দিনে যেভাবে কাজ করতে বলবে আমরা সেই ভাবে কাজ করবো এবং এলাকার মানুষের সার্বিক উন্নয়ন করার চেষ্টা করবো।
এদিন এবিষয়ে কোচবিহার জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অভিজিৎ দে ভৌমিক বলেন, আজ তুফানগঞ্জ ২ নং ব্লকের ভানুকুমারী ২ নং গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্যা সীমা দাস ও পদিকা বর্মণ বিজেপি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করেন। আজ যারা দলে যোগদান করছেন তারা মানুষের ভোটে জয় লাভ করেছে। তাই তারা এলাকার উন্নয়ন করতে চায়। ওই গ্রাম পঞ্চায়েত বিজেপির নেতা কর্মীরা উন্নয়নের বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছিল তাই সেখানে উন্নয়ন হয় নি। আজ তারা ভারতীয় জনতা পার্টি ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসে যোগদান করলেন। তাই তৃনমূলের সকল নেতৃত্বকে সঙ্গে নিয়ে আজ তাদের যোগদান করানো হল। আগামীতে যাতে ওই এলাকায় উন্নয়ন তারা ভালোভাবে করতে পারে সেদিনে নজর আমরা রাখব এবং তারা যেন তৃনমূলের হয়ে এলাকায় উন্নয়ন করেন এবং রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর স্বপ্নের প্রকল্প গুলো বা পরিষেবা গুলো মানুষের বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দিতে পারে সেই আশা করবো বলে জানান তিনি।