খেলার মাঠ, পুকুর ধ্বংসের বিরুদ্ধে আন্দোলন শান্তিপুরে।

0
336

নদীয়া, নিজস্ব সংবাদদাতাঃ- তিল তিল করে ধ্বংস হচ্ছে খেলার মাঠ, পুকুর, আমবাগান ৷ প্রমোটারদের গ্রাসে পড়ে ঐসব জায়গায় জমির শ্রেনী পরিবর্তন করে গজিয়ে উঠছে বাড়ি, শপিংমল, বাজার ৷ শান্তিপুরে এক সময় প্রচুর খেলার মাঠ, পুকুর, আমবাগান ছিলো ৷ কিন্তু বর্তমানে হাতে গোনা কয়েকটি মাঠ অবশিষ্ট রয়েছে ৷ পুকুরের সংখ্যাও কমছে ৷ আমবাগানগুলিও ধ্বংস হচ্ছে ৷ আন্দোলন জোড়দার হলেই মাফিয়ারা সতর্ক হয়ে যায় ৷ কিন্তু সুযোগের অপেক্ষায় থাকে কিছু পরিবেশ ধ্বংসকারীরা ৷ সুযোগ বুঝে লুকিয়ে চুরিয়ে মাঠ, বাগান পুকুর ধ্বংস করতে উদ্যত হয় ৷ এমনই অভিযোগে নতুন বছরের প্রথম দিনেই পুনরায় আন্দোলনে সামিল হলো নদীয়ার শান্তিপুরের গোডাউন মাঠ এলাকার বাসিন্দারা ৷ আজ সকাল থেকেই মাঠ এবং পুকুর ধ্বংসের বিরুদ্ধে মাঠেই বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন ৷ স্থানীয় মানুষের অভিযোগ শান্তিপুর স্টেশন সংলগ্ন গোডাউন মাঠ দখল করে কিছু অসাধু ব্যক্তি মাঠের জায়গায় দোকান দিয়ে, অটো রেখে এলাকার পরিবেশ নষ্ট করছে ৷ এলাকার মৌসুমী বিশ্বাস, বুলু রায, ইলা বিশ্বাসরা জানান যে, কিছু হাটে বসিয়ে লোক তোলাবাজী করার কারনে শিশুরা খেলার মাঠে খেলতে পারছেনা ৷ মাঠের পাশের পুকুরটিকে ধীরে ধীরে ভরাট করা হচ্ছে ৷ পুকুরের পাড়ে নির্মান বেআইনি হলেও কিছু প্রভাবশালী ব্যক্তির মদতে নাকি পুকুরের পাড়ে নির্মান হলেও প্রশাসন নির্বিকার ৷ এই অভিযোগে আজ সকালেই মাঠেই ক্ষোভে ফেটে পড়েন এলাকার মানুষ ৷ বিক্ষোভ সামলাতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় পুলিশ ৷ পরিস্থিতি আপাততঃ নিয়ন্ত্রনে ৷ স্থানীয় অটো ইউনিয়নের সম্পাদক বিশ্বজিৎ প্রামানিক বলেন দীর্ঘ আট দশ বছর ধরে এই মাঠে একটি পাশে রাখা হয়, আন্দোলনকারীরা আগে মাঠে হাট বসার বিরোধীতা করতেন ৷ এখন অটো-টোটো রাখার আপত্তি জানাচ্ছেন ৷ ওই মাঠটি সরকারি তাই সরকার এ বিষয়ে কোনো ব্যবস্থা নেন না। আমাদের খূব কম সংখ্যক অটো যাতায়াতের কোন অসুবিধা না করেই রাখা থাকে ৷ প্রশাসন যেভাবে নির্দেশ নেবেন সেভাবেই তারা চলবেন ৷