ভারত বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায় বিএসএফ মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো মালদা জেলার বামনগোলা ব্লকের 159 ব্যাটালিয়ান।

0
885

নিজস্ব সংবাদদাতা, মালদাঃ-ভারত বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায় বিএসএফ মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ালো মালদা জেলার বামনগোলা ব্লকের 159 ব্যাটালিয়ান। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার ভোরে। বিএসএফ সূত্রে জানা যায় 159 ব্যাটালিয়ান বামনগোলা ব্লকের খুটাদহ ক্যাম্পের ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকায়। হাড়িয়া নদীতে ওই বিএসএফ জওয়ানের দেহ উদ্ধার হয়। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বামনগোলা থানার পুলিশ। মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয় । এ বিষয়ে বিএসএফ সুত্রে জানা গিয়েছে উল্লেখ্য কিছুদিন ধরে 159 ব্যাটালিয়ান তারকাটা ওপারে হবিবপুর বামনগোলা জুড়ে গরু পাচার চেষ্টা চালায় জোরকদমে বাংলাদেশের পাচারকারীরা। গত শুক্রবার ওই এলাকার হবিবপুর এর 159 ব্যাটালিয়ন জাওয়ান গুলিতে এক বাংলাদেশী পাচারকারী মৃত্যু হয়। ঠিক তারপরের দিন সোমবার বামনগোলা ব্লকের খুটাদহ ক্যাম্পের ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তে নদীতে এক বিএসএফের জাওয়ানের মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে গোটা এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। মনে করা হচ্ছে কিছুদিন আগে বাংলাদেশের পাচারকারীরা চোরাপথে গরু পাচারের সময় বিএসএফ কে লক্ষ্য করে ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে পাল্টা বিএসএফ গুলি চালালে এক বাংলাদেশীর মৃত্যু হয়। বি এস এফের অনুমান ঠিক একদিন পর সোমবার ভোর নাগাদ ওই সীমান্তবর্তী এলাকায় বিএসএফ জওয়ানকে পাচাকারীদের রুখতে গিয়ে তাকে আটোক করে এবং নদীতে জলে ডুবিয়ে ধরে ডিউটি থেকে না ফেরায় বি এস এফের তরপে খোঁজ চালালে নদী থেকে ওই জওয়ানের মৃতদেহ উদ্ধার হাওয়া অনেকেই মনে করছেন গরু পাচারের বাধা দেওয়ায় পাচারকারীরাই ওই জাওয়ানকে মেরে নদীর জলে ভাসিয়ে দেয়। এ ঘটনায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে ১৫৯ নম্বর ব্যাটেলিয়ানে।ওই জাওয়ানের মৃতদেহ ময়নাতদন্তের ক্যাম্পে নিয়ে আসে সেখানে তার কফিন বন্দিদেহকে সন্মান জানানোর পরে ওই জওয়ানের দেহ তার বাড়ি পাঞ্জাবের উদ্দেশ্য পাঠানো হয়।